Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 007 (The Baptist prepares the way of Christ)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Burmese -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Hausa? -- Hindi -- Indonesian -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish -- Tamil -- Telugu -- Turkish -- Urdu -- Uyghur -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
প্রথম অংশ - বেহেশতি নূর ঝলমল করছে (যোহন ১:১ - ৪:৫৪)
ক - খোদার বাক্য ঈসা মসিহের মাধ্যমে জন্ম নিলেন (যোহন ১:১-১৮)

২. বাপ্তিস্মদাতা, ঈসা মসিহের পথ প্রস্তুত করেন (যোহন ১:৬-১৩)


যোহন ১:১১-১৩
১১ তিনি নিজের দেশে আসলেন, কিন্তু তাঁর নিজের লোকেরাই তাকে গ্রহণ করল না৷ ১২-১৩ যত জন তার ওপর বিশ্বাস করে তাকে গ্রহণ করল, তাদের প্রত্যেককে তিনি খোদার সন্তান হবার অধিকার দিলেন৷ এই লোকদের জন্ম রক্ত থেকে হয়নি, শারীরিক কামনা বা পুরুষের বাসনা থেকেও হয়নি, কিন্তু খোদা থেকেই হয়েছে৷

পুরাতন নিয়মের লোকেরা খোদার অধিকারভুক্ত ছিল, কারণ প্রভূ নিজেই এই পাপীদেরকে একটি চুক্তিনামার মাধ্যমে বেঁধে রেখেছিলেন এবং তাদেরকে পবিত্র করেছিলেন৷ তিনি তাদেরকে শত শত বছর পর্যন্ত পরিচালিত করেছিলেন৷ তিনি তাদের হৃদয়কে তার আইনদ্বারা তৈরি করেছিলেন, তাদেরকে প্রস্তুত করেছিলেন সুসমাচার বপন করার জন্য৷ এইভাবে, ইব্রাহীমের বংশধরদের ইতিহাসকে মসিহের আগমনের দিকে নির্দেশনা দিয়েছিলেন৷ তার আবির্ভাব ছিল পুরাতন নিয়মের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্যের পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন৷

এটা একটা অদ্ভুত ঘটনা যে, যাদের প্রভু ঈসা মসিহকে সম্ভাষণ করার জন্য মনোনীত করা হয়েছিল, তারা তাকে প্রত্যাখান করেছিল এবং তারা নূরকে গ্রহণ করেনি৷ তারা অধিকতর পছন্দ করেছিল, আইনদ্বারা তৈরি করা অন্ধকারের মধ্যে বাস করতো এবং বিচারের মুখোমুখি হতো৷ অতএব তারা সম্পূর্ণভাবে তার অনুগ্রহকে হারিয়েছিল এবং নিজেদের কৃতকর্মকে ঈসা মসিহের নাজাত প্রদানের ব্যবস্থা থেকে বেশি ভালোবেসেছিল৷ তারা অনুতপ্ত হয় নাই, কিন্তু সত্যের রুহের বিরুদ্ধে নিজেদেরকে উত্তেজিত করেছিল৷

শুধুমাত্র পুরাতন নিয়মের লোকেরা খোদার সম্পত্তি নয়, কিন্তু সমস্ত মানবজাতি তার সম্মতি, কারণ সর্বশক্তিমান পাথর গাছপালা পশুপাখি এমনকি মানবজাতিকে সৃষ্টি করেছেন৷ এই কারণে পুরাতন নিয়মের লোকেদের মতো দুনিয়ার সমস্ত মানুষ একই দায়িত্ব বহন করে৷ আমাদের স্রষ্টা এবং মালিক আমাদের হৃদয়ের বাসস্থানে ঢুকতে চান, তাহলে কে তাকে সাদর সম্ভাষণ জানাবে? তুমি খোদার অধিকারভূক্ত বা অংশ স্বরূপ৷ তুমি কি নিজেকে প্রভূর হাতে সমর্পণ করেছ? দুর্ভাগ্যজনকভাবে, সকল জাতির অধিকাংশ মানুষ মসিহের নূরের কাছে প্রকাশিত হতে নারাজ৷ তারা তার নূরের সাহায্য নিজেদের কঠিন অন্ধকারকে অতিক্রম করতে চায় না৷ এইভাবে তারা আমাদের এই যুগে আরও একবার খোদার পুত্রকে অস্বিকার করে৷

ইব্রাহীমের বংশধররা কিংবা সাধারণ মানবজাতির লোকেরা, সে যেই হোক, তার হৃদয়েকে মসিহের কাছে প্রকাশ করে এবং নিজেকে শক্তিশালী মুক্তিদাতার হাতে সর্মপণ করে, সেই ব্যক্তি বিশাল মোজেজার অভিজ্ঞতা লাভ করবে৷ কারণ বেহেস্তি নূর তাকে পবিত্র নূরের সাথে একত্রে আলোকিত করবে এবং তার হৃদয়ে যে অন্ধকার জমে আছে, তা পরাস্ত করবে৷ এ ছাড়াও খোদার শক্তি তার অন্তরে প্রবেশ করবে এবং তার ভিতরকার সত্তাকে পুনরুজ্জীবিত করবে৷ ঈসা মসিহ তোমাকে পাপের দাসত্ব থেকে মুক্ত করবেন৷ তিনি তোমাকে খোদার সন্তানের মতো করে স্বাধীনভাবে বদলে দেবেন৷ তুমি যদি ঈসা মসিহকে ভালোবাস তাহলে পাকরুহ তোমাদের মধ্যে বসবাস করবে এবং পাপ হইতে উদ্ধারের কাজ তোমার জীবনে শুরু করবেন৷

এখন প্রচারক যোহন একথা বলেননি যে আমরা খোদার সন্তান হয়েছি বা হব, কিন্তু আধ্যাত্মিকভাবে বেড়ে ওঠার মাধ্যমে আমরা তার সন্তান হয়েছি৷ আমরা এই দুটি শব্দের বড় ধরনের বৈশাদৃশ্য দেখতে পাই৷ কারণ যে মসিহে বিশ্বাস করে, সে একটি নতুন জীবনে প্রবেশ করবে৷ একই সময়ে সে উন্নতি ও বিশুদ্ধতার মধ্য দিয়ে তার আধ্যাত্মিক জীবনে বেড়ে উঠবে৷ প্রভুর শক্তি আমাদেরকে নতুন সৃষ্টির মতো করে তৈরি করেছেন এবং আমাদেরকে পবিত্র ও নিখুঁত করবে৷

আমরা খোদার সন্তান হয়েছি শুধুমাত্র অবলম্বিত বা শুধুমাত্র পৌষ্য রূপে নয়, কিন্তু আধ্যাত্মিক জন্মের মাধ্যমে তার সন্তান হয়েছি, আমাদের হৃদয়ে মসিহের রুহ নেমে আসার অর্থ হলো আমরা তার সম্পূর্ণ কৃতিত্বের অধিকারী হয়েছি৷ বিশ্বাসীদের ভিতর এই বেহেস্তি কতর্ৃত্বের অধিকারী হওয়া, এই সত্যকে প্রকাশ করে যে, কোনো শক্তি এই দুনিয়াতে এবং কালের শেষ পর্যন্ত তাদের বেহেস্তি নৈতিকতাকে বাধা দিতে পারবে না৷ ঈসা মসিহ হলেন এই বিশ্বাসের শ্রষ্টা এবং এর পূর্ণতাদানকারী৷

দুনিয়ার সন্তান এবং খোদার সন্তান এই দুইয়ের মধ্যে কখনো তুলনা হয় না৷ আমরা পিতা-মাতার দ্বারা জন্মপ্রাপ্ত হয়েছি তাদের প্রাকৃতিক প্রেরণার মধ্য দিয়ে অথবা তাদের সুচিন্তিত পরিকল্পনা অনুযায়ী৷ হয়তোবা তারা রুহের দ্বারা পরিচালিত হয়ে একত্রে প্রার্থনা করেছিল৷ কিন্তু আমাদের মাতা-পিতার থেকে সমস্ত অধ্যাত্মিক মনস্তাত্তি্বক উত্তরাধিকার পাওয়া আমাদের খোদা থেকে নতুন সৃষ্টির কোনো সম্পর্ক নেই৷ কারণ আধ্যাত্মিকভাবে নবজীবন হলো পবিত্র এবং সেটা খোদা থেকে প্রথমেই শুরু হয়েছিল, যার থেকে প্রতিটি মসিহি সরাসরি জন্ম নেয়৷ কারণ তিনি আমাদের সত্যিকার আধ্যাত্মিক পিতা৷

কোনো শিশুই নিজে থেকে জন্ম নিতে পারে না৷ তাকে জন্ম দেওয়া হয়৷ এইভাবে আমাদের আধ্যাত্মিক জন্ম হলো একটি সম্পূর্ণ খোদার রহমত৷ ঈসা মসিহ তার সুসমাচারের বীজ আমাদের হৃদয়ে বপন করেন৷ যে এই বীজকে ভালোবাসে সে তাদেরকে গ্রহণ করে এবং ধরে রাখে, তার ভিতরে খোদার অনন্ত জীবন বেড়ে ওঠে৷ তারাই আশীর্বাদপুষ্ট, যারা খোদার বাক্য শোনে এবং ধরে রাখে৷

খ্রিস্টান পরিবারে জন্মগ্রহণ করা এবং খ্রিস্টানদের সাথে সংশিস্নষ্ট থাকা আমাদেরকে খোদার সন্তান হিসাবে তৈরি করে না, কিন্তু শুধুমাত্র মসিহের ওপর বিশ্বাসই আমাদেরকে খোদার সন্তান হিসবে তৈরি করে৷ বিশ্বাসের অর্থ হলো তাঁর কাছে আসা, নিজেকে তাঁর চারিত্রিক গুণাগুণের মধ্যে বিজড়িত করা, তার শান্ত স্বভাবকে বোঝা এবং শক্তির ভেতরে বৃদ্ধি হওয়া৷ এই বৃদ্ধি ততক্ষণ পর্যন্ত ঘটেনা যতক্ষণ আমরা নিজেদেরকে তার হাতে তুলে না দিই, এই বিশ্বাসই আমাদেরকে উদ্ধার করে এবং তাঁর সদৃশ্যে আমাদেরকে রূপান্তরিত করে৷ ঈসা মসিহের ওপর বিশ্বাস তাঁর এবং আমাদের ভিতর একটি হৃদয়গ্রাহী সম্পর্ক এবং একটি চিরস্থায়ী চুক্তিপত্র৷ তাঁর উপর বিশ্বাস ব্যতীত আমাদের আধ্যাত্মিক জন্মলাভ হবে না, যাতে করে আমরা বলতে পারি যে নতুনভাবে জন্ম নেওয়া বিরাট কিছু নয় অথবা বিশ্বাসের থেকে বেশি কষ্টসাধ্য, ঠিক যেমন বিশ্বাস কোনো কিছু থেকে ছোট নয় অথবা নবজীবন থেকে সহজতর, তারা একই জিনিস৷

প্রচারক যোহন কখনো তার সুসমাচারে ঈসা মসিহের নাম এই রচনাটির আগে উল্লেখ করেননি৷ বরং তিনি বিভিন্ন জাতির বিশ্বাসীদের কাছে তার ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে বর্ণনা দিয়েছিলেন, এবং এমন শব্দ ব্যবহার করেছিলেন যা তাদের চিন্তাধারার সাথে খাপ খেত৷ আপনি কি মসিহের গুণাবলির মধ্যে এই ছয়টি অর্থ বুঝেছিলেন, যা প্রচারক তার জামাতের কাছে পেশ করেছিলেন? আপনি কি আপনার হৃদয়েকে উম্মোচন করেছেন সেই শক্তির কাছে যা অর্পিত হয়েছে এবং তার কাছে খোদার বাধ্যগত সন্তান হবেন৷

প্রার্থনা : ও প্রভু ঈসা মসিহ, আমি তোমার কাছে সমর্পিত হই, তোমাকে ভালোবাসি এবং আমার হৃদয়েকে তোমার কাছে তুলে ধরি৷ আমার পাপ সত্ত্বেও তুমি আমার কাছে এসো, আমার সমস্ত অন্যায় প্রবণতা থেকে আমাকে ধৌত করো, এবং পাক রুহের মধ্য দিয়ে আমার ভিতর বসবাস করো৷ ও প্রভু আমি আমার হৃদয়ের দরজাগুলিকে প্রশস্তভাবে তোমার কাছে খুলে রেখেছি৷

প্রশ্ন:

১১. যারা ঈসা মসিহকে গ্রহণ করে তাদের জীবনে কী ঘটে?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on June 06, 2012, at 12:17 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)