Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- Romans - 015 (He who Judges Others Condemns Himself)
This page in: -- Afrikaans -- Arabic -- Armenian -- Azeri -- BENGALI -- Bulgarian -- Cebuano -- Chinese -- English -- French -- Hebrew -- Hindi -- Indonesian -- Malayalam -- Polish -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish -- Turkish -- Urdu? -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

রোমীয়দের - প্রভুই আমাদের ধার্মিকতা
রোমীয়দের কাছে হযরত পৌলের লেখা পত্রের ওপর পর্যালোচনা
প্রথম খন্ড - খোদার ধার্মিকতা সকল পাপীকে দোষী সাব্যস্থ করে, আর মসিহের ওপর বিশ্বাসিদের ন্যায়বান ও আলাদা করে (রোমীয় ১:১৮ - ৮:৩৯)
ক - গোটা বিশ্ব দুষ্টচক্রের প্রভাবে পড়ে আছে, হচ্ছে পরিচালিত, খোদা তাঁর ধার্মিকতার আলোকে তাদের বিচার করবেন (রোমীয় ১:১৮ - ৩:২০)
২. ইহুদিদেও বিরম্নদ্ধে খোদার গজব প্রকাশ পেল (রোমীয় ২:১ - ৩:২০)

ক) যে কেউ অন্যের বিচার করে সে তো পরিষ্কার নিজেকে দোষী সাব্যস্থ করছে (রোমীয় ২:১-১১)


রোমীয় ২:১-২
১ কেউ যদি এতে অন্যদের দোষ দেয় তাহলে আমি তাকে বলব, তোমার নিজের অজুহাতটা কোথায়? যখন তুমি অন্যদের দোষ দাও তখন কি তুমি নিজেকেই দোষী বলে প্রমাণ করা না? তুমি অন্যদের দোষ দাও অথচ তুমি সেই একই কাজ করে থাক৷ ২ আমরা জানি যারা এই রকম কাজ করে আল্লাহ তাদের ন্যায্য বিচারই করেন৷

পাপের মুকুট হলো ভন্ডামি৷ মানুষ নিজেদের ধার্মিক বলে ভান করে৷ ভান করে জ্ঞানি ও সাধু হিসেবে, যদিও তারা তাদের বিবেকের সাক্ষ্যে জানতে পারে যে, খোদার পবিত্রতার তুলনায় তারা বড়ই দুষ্ট৷ মানুষের এ ভন্ডামি সত্ত্বেও তারা তাদের বন্ধুদের ঘৃণাভরে আচার বিচার করে, আর তাদের সম্বন্ধে ঘৃণাভরে মন্তব্য করে, মনে হয় তারা নিজেরা পূতপবিত্রতার আদর্শস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, আর তাদের বন্ধুবান্ধব তুচ্ছিকৃত৷

পৌল আপনাদের দাম্ভিকতা ভেঙ্গে দিয়েছেন৷ তিনি আমাদের ফালতু মুখোস খুলে ফেলেছেন৷ দেখিয়ে দিয়েছেন আপনাদের বিচার সঠিক নয়৷ আপনি কি কাউকে চেনেন যে সত্যবাদি নয়? আপনি তার চেয়ে অধিক মিথ্যাবাদি৷ আপনি কি কোনো নরঘাতক দেখেছেন? আপনি হৃদয়ের ঘৃণার কারণে তার চেয়ে বড় নরঘাতক৷ আপনি নিজের বিষয়ে যে চিন্তা করেন তাও সত্য নয়৷ খোদার রূহ আপনাকে দোষারোপ করে৷ তিনি মিথ্যাবাদি ধার্মিক শিক্ষকদের প্রথমে নিন্দা জ্ঞাপন করছেন, যারা নিজেদের, অন্যান্য পাপীর চেয়ে উত্তম ভেবে বসে আছে, আসলে সত্যিকারার্থে প্রকৃত ধার্মিকতার বিষয়ে তারা কিছুই জানে না৷ মসিহকে সাধারণ জনগণ সলিবে বিদ্ধ করে হত্যা করে নি বরং ভন্ড আলেম ও ধমর্ীয় নেতাগণ, যারা নিজেদের ধার্মিক বলে জনসাধারণের কাছে থেকে দৃষ্টি কাড়তো, যেমন ময়ূর নিজের জৌলুস প্রকাশ করে৷ আসলে তাদের ভিতরটা সকল প্রকার অসুচি পদার্থে ছিল পরিপূর্ণ৷

খোদা আপনাকে দোষারোপ করেন, আপনার কাজের জন্য নয়, আপনার মনোভাব, চিন্তাচেতনা, এবং ইচ্ছা আকাঙ্খার জন্য৷ শৈশব থেকে আপনার চিন্তা মন্দ৷ আপনার মনোভাবে আপনি স্বার্থপর৷ আপনি খোদাকে অমান্য করেন, তাঁর পরিকল্পনার বিরোধিতা করেন, তাঁর শরিয়তের অমান্য করেন, আর আপনার সহকমর্ীদের তুচ্ছতাচ্ছিল্য করে চলেন৷ আপনার নিজের আত্মায় আপনি একজ ব্যভিচারি আর আপনার মহান স্রষ্টার থেকে আপনি দূরীকৃত৷ আপনার দুষ্ট চিন্তা আপনার হৃদয় থেকে নির্গত হয়ে থাকে৷ যাহোক, শেষ বিচারের সময় আপনি শুনতে পাবেন আপনার বাক্য সকল লিখিত আকারে আর দেখতে পাবেন কৃতকর্মের ছবি ও তার ফিরিশতি, আর আপনার কলুষিত লক্ষ্য উদ্দেশ্য, আর তখন ভয়ে প্রকম্পিত থাকবেন, হয়ে পড়বেন নিরুপায় বাকরুদ্ধ৷ আপনি গুনাহগার৷ আপনার হৃদয়ে আপনি কলুষিত৷ আপনার প্রতিবেশি খুবই থারাপ হতে পারে৷ তবে তাদের দুষ্টতা আপনার নির্দোশিতার সাক্ষ্য বহন করে না৷ আপনি আপনার পাপে মরবেন, কারণ আপনি আপনার বিষয়ে খোদার কাছে জবাব দিতে বাধ্য৷ সুতরাং অপরাধি নিজেকে আগে জানুক খোদার পূতপবিত্রতার আলোকে৷

আপনি হয়তো এ কঠিন শব্দগুলো সহ্য করতে পারছেন না, অথবা তাতে আপনার রয়েছে প্রচুর আপত্তি, আপনার দাম্ভিবতা না ভেঙ্গে অথবা প্রভুর সামনে অনুতাপে আপনার হৃদয় বিসর্জন না দিলে কেউই সমালোচনা সহ্য করতে পারে না৷ বুঝতে চেষ্টা করুন, সজাগ সচেতন হোন, আপনার প্রকৃত অবস্থান জানা নেই বলে পার পেয়ে যাবেন শেষ বিচারের হাত থেকে তেমন সুখ স্বপ্নের কোনো কারন নেই৷ অনন্ত সত্য আপনার জেরা করবে ও দোষী বলে সাব্যস্থ করবে৷ জগতের সকল ধর্ম শেষ বিচারের খবর কিছুটা হলেও রাখে, কেউ বা ঐ দিনকে পুনরুত্থান দিবস বলে, 'আলকারিয়া' অর্থাত্‍ ধ্বংসের দিন৷ অবিশ্বাসীরা খোদার সামনে হাজির হতে অস্বীকার করে৷ সেই কঠিন মুহুর্তে, আপনার সর্বপ্রকার গোপনীয়তা, চিন্তা, বাক্য এবং ঘৃনা বা প্রত্যাখ্যান সকলের সামনে অবারিত হয়ে পড়বে, আর আপনার প্রত্যেকটি অপ্রয়োজনীয় বাক্য যা আপনি নিষপ্রয়োজনে আওড়াচ্ছেন, তার হিসেব দিতে হবে, প্রত্যেকটি পয়সার হিসেব দিতে হবে যা কিছু আপনি বেহুদা খরচ করেছেন এবং প্রত্যেকটি মুহুর্ত যা খোদার ধন্যবাদ ও গৌরবে ব্যয় না করে অযথা নষ্ট করেছেন তার হিসেব দিতে হবে৷ আপনি হলেন খোদার আশির্বাদের নায়েব, তিনি যাকিছু আপনার হাতে বা দায়িত্বে দিয়েছেন ঐ সকলের রক্ষণাবেক্ষণের ও সঠিকভাবে ব্যবহারের জন্য দায়প্রাপ্ত৷ খোদার গৌরবের কীরণ হৃদয়, ভিতর-বাহিরের সকল সত্ত্বা ভেদ করে অতীত বর্তমান নীরিক্ষা করবে, হাসপাতালের অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি ও মেশিনের চেয়েও তা পারদশর্ী ও কার্যকর এ রশ্মি৷ সম্পূর্ণ উদাম অবস্থায় আপনি দাড়িয়ে থাকবেন তথায়৷

প্রার্থনা: হে পূতপবিত্র খোদা, তুমি অনন্ত, তুমি ধার্মিক, আর আমি মহাদোষে দোষী৷ ধার্মিকতার যতো ভান করেছি সে সকল অপরাধ ক্ষমা করো, আমার হৃদয় উম্মুক্ত করো, যার ফলে হৃদয়ের পুঞ্জীভূত সকল ক্লেদ কালিমা পাপ অপরাধ অপসারিত হয়ে যাবে৷ তোমার সম্মুখে আমি আমার সকল পাপ স্বীকার করছি৷ তোমার কাছে যাঞ্চা করছি, তোমার মহব্বতের আত্মা আমার মধ্যে ঢেলে দাও, যেন কখনোই আমি তা প্রত্যাখ্যান না করি, কোনো লোককে দোষারোপ বা ঘৃণা না করি, বরং প্রেম ও বিচক্ষণতা নিয়ে বেড়ে ওঠতে পারি৷ সকল পাপীর মধ্যে আমি হলাম অগ্রগণ্য৷ হে খোদা, আমার প্রতি রহমত করো, তোমার দয়া ও অনুকম্পানুসারে, আর পাপের শেষ তলানি পর্যন্ত মুছে ফেলো, আমার গর্ব ও অহমিকা বিনাশ করো যেন আত্মাতে মৃদুশীল হতে পারি৷

প্রশ্ন:

১৯. অন্যের বিচার করতে গিয়ে মানুষ কীভাবে নিজেকে দোষারোপ করে বসে?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on February 25, 2014, at 12:43 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)