Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- Romans - 024 (The Revelation of the Righteousness of God)
This page in: -- Afrikaans -- Arabic -- Armenian -- Azeri -- BENGALI -- Bulgarian -- Cebuano -- Chinese -- English -- French -- Hebrew -- Hindi -- Indonesian -- Malayalam -- Polish -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish -- Turkish -- Urdu? -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

রোমীয়দের - প্রভুই আমাদের ধার্মিকতা
রোমীয়দের কাছে হযরত পৌলের লেখা পত্রের ওপর পর্যালোচনা
প্রথম খন্ড - খোদার ধার্মিকতা সকল পাপীকে দোষী সাব্যস্থ করে, আর মসিহের ওপর বিশ্বাসিদের ন্যায়বান ও আলাদা করে (রোমীয় ১:১৮ - ৮:৩৯)
বি - ইমানের দ্বারা নতুন ধার্মিকতা লাভের সুযোগ রয়েছে সবার জন্য খোলা (রোমীয় ৩:২১ - ৪:২২)

১. মসিহের অভিষিক্ত মৃতু্যর মাধ্যমে খোদার ধার্মিকতার প্রকাশ ঘটেছে (রোমীয় ৩:৩১-২৬)


রোমীয় ৩:২৫-২৬
২৫ আল্লাহ প্রকাশ করেছিলেন যে, যারা ঈমান আনে তাদের জন্য ঈসা মসিহ তাঁর রক্তের দ্বারা, অর্থাত্‍ তাঁর জীবন-কোরবানীর দ্বারা তাঁকে সন্তুষ্ট করেছেন৷ এভাবেই আল্লাহ দেখিয়েছেন, যদিও তিনি তাঁর সহ্যগুণের জন্য মানুষের আগেকার গুনাহের শাস্তি দেন নি তবুও তিনি ন্যায়বান৷ ২৬ তিনি যে ন্যায়বান তা তিনি এখন দেখিয়েছেন যেন প্রমাণ হয় যে, তিনি নিজে ন্যায়বান এবং যে কেউ ঈসা মসিহের ওপর ঈমান আনে তাকেও তিনি ধার্মিক বলে গ্রহণ করেন৷

মানবতাই কেবল মসিহকে সলিবে হত্যা করে নাই, খোদা জগতকে এতটাই মহব্বত করেছেন যে তিনি নিজেও তাঁর প্রিয় পুত্রকে পাপীদের কাছে প্রেরণ করেছেন তাদের রক্ষা করার জন্য, তিনি জানতেন তারা ভয়ানক দুষ্ট এবং শেষ পর্যন্ত মসিহকে হত্যা করবে৷ তথাপি, তাঁর বেহেশতি জ্ঞানে তিনি মনস্থ করেছেন, সর্বকালের সকল গুনাহগারদের পাপের কাফফারা পরিশোধের জন্য তিনি তাঁর পুতপবিত্র পুত্রকে কোরবানি দেয়া একমাত্র ব্যবস্থা তার পবিত্র রক্তের মূল্যে তাদের ক্রয় করা সর্বোত্তম৷ মসিহের রক্ত আমাদের সকল পাপ পরিষ্কার করে৷ পুতপবিত্র মসিহের রক্ত ছাড়া গুনাহগারদের মুক্তি পাওয়া সম্ভব নয়৷

আমাদের এ ঘটনাবহুল ও বিজয়ী প্রযুক্তির যুগে আমরা ভুলে গেছি সেই জ্ঞান যা হলো, খোদার গজব ও বিচার, জগতের জন্য চিরন্তন ক্ষমতা, আর তা হাওয়াই জাহাজ, ডুবোজাহাজ, ট্যাঙ্ক, হাইড্রোজেন বোমা এ সকল ক্ষমতাধর মারণাস্ত্রের চেয়ে অনেকগুণ গুরুত্বপূর্ণ৷ আমাদের প্রত্যেকটি পাপের জন্য চাই শাস্তি ও অভিষেক, নীতিগতভাবে, আমরা মৃতু্যর যোগ্য, মসিহের বিজয়ী কোরবানি আমাদের জন্য একমাত্র নাজাতের উপায়৷ এ কারণে, খোদার পুত্র মানবরূপ ধারণ করলেন বেদিতে পোড়ার জন্য যা হলো সলিব, যাতে তিনি খোদার ক্রোধের আনলের শিখায় পুড়েছেন৷ যে কেহ বিশ্বাস করে তাঁর আশ্রয় নেয়, সেই পায় পূর্ণাঙ্গ নাজাত ও হয় ন্যায় প্রতিপাদিত৷ লক্ষ্যকোটি জনতা অভিজ্ঞতা লাভ করেছেন যে, খোদার সমস্ত ক্ষমতা মসিহের কোরবানিকৃত রক্তের মধ্যে রয়েছে ন্যাস্ত৷ তাই আমরা আপনাকে ডাক দিচ্ছি, প্রিয় ভ্রাত: তাঁর কাছ থেকে দূরে সরে থাকবেন না, যিনি আমাদের জন্যই সলিবে নিজ প্রাণ করেছেন দান, পরিবর্তে আপনার গৃহ, কর্মস্থল, আপনার অতীত, আপনার ভবিষ্যত, আপনার জামাত এবং আপনি নিজেকে সম্পূর্ণভাবে খোদার মেষ-শিশুর রক্তে শিক্ত স্নাত থাকবেন যেন সদাসর্বদা খোদার সত্যে সুরক্ষিত থাকতে পারেন৷ নেই ঈসা মসিহের পবিত্র রক্তে আবৃত ছাড়া শয়তানের অভিযোগ আর খোদার ক্রোধ থেকে বেঁচে থাকার আর কোনো উপায়৷

২১ আয়াত থেকে ২৮ আয়াত পর্যন্ত মুখস্ত করুন৷ উক্ত অংশের প্রত্যেকটি বাক্য পাঠ করুন, আর তার প্রকৃত অর্থ হৃদয়ঙ্গম করুন, হৃদয়ে সঞ্চালিত করুন৷ তখন বুঝতে পারবেন এ শিক্ষামালায় গুনাহগারদের যে কি করে ন্যায়বান বলে গ্রহণ করা হয় তাই প্রধান বিষয় নয়, বরং খোদার ধার্মিকতার প্রকাশ যা উক্ত অংশে তিন বার প্রকাশ করা হয়েছে৷

আমাদের মহব্বতের পিতা অতীতে পাপীদের ধ্বংস করে দেন নি, যেমনটি শরীয়তের দাবি রয়েছে৷ করুনানিধি ক্ষমা করেছেন এবং তাদের সকল পাপ অপরাধ প্রত্যাখ্যান করেছেন, কেননা তিনি মহব্বত ও ধৈর্যশীল, অপেক্ষায় থাকেন মন্দজগত ছেড়ে সকলে যেন তাঁর কাছে ফিরে আসে৷ সলিব থেকে মসিহের আর্তনাদ ছিল গোটা বিশ্ব যেন তাঁর মৃতু্যর মধ্য দিয়ে খোদার সাথে পুনর্মিলিত হতে পারে৷ তখন সমস্ত ফেরেশতাকুল প্রশংসায় উত্‍ফুল্ল হলো, কেননা সলিববিদ্ধ মসিহের পুনরুত্থানের দ্বারা বিশ্বের সকল গুনাহগারদের বেগুনাহ বলে গণ্য করা হয়েছে৷

যে কেউ এমন কথা বলে যে খোদা যখন তখন যাকে খুশি তাকে চাইলেই ক্ষমা করতে পারেন সে অজ্ঞ, মানুষের ভাসাভাসা যুক্তিতে সে বিশ্বাস করে৷ কেননা খোদা স্বেচ্ছাচারি নন, তিনি নিজেকে তাঁর বাক্য এবং পবিত্রতার কাছে সীমিত করে রেখেছেন, যেক্ষেত্রে শরীয়ত ভঙ্গকারী প্রত্যেকটি গুনাগারের মৃতু্য অবধারিত৷ তিনি প্রকাশ করেছেন, রক্তক্ষরণ ব্যতিত পাপের মুক্তি সম্ভব নয়৷ ধার্মিকতার শর্ত পূরণ না করে তিনি যদি গুনাহগারদের বেগুনাহ বলে মুক্ত করে দিতেন তবে তাকে দোষারোপ করা হতো, তাই তাকে গোটা বিশ্বের পাপের কাফফারা পরিশোধকল্পে বেগুনাহ মেষ খোদাবন্দ হযরত ঈসা মসিহকে সলিবে কোরবানি দিতে হয়েছে, অর্থাত্‍ মসিহ আমাদের পক্ষে কোরবানি হয়েছে৷

মসিহের সলিবে প্রাণ কোরবানি দেয়ার ফলে দুটো বিষয়ের পরিপূর্ণতা পেল: খোদা তাঁর ধার্মিকতার প্রকাশ ঘটালেন আর আমাদের সম্পূর্ণভাবে অবমুক্ত করলেন সমস্ত পাপ অপরাধের অভিযোগ থেকে৷ আমাদের গুনাহ মুক্ত করার ক্ষেত্রে পূতপবিত্র খোদা অবিবেচক নন, কেননা মসিহ ধার্মিকতার শর্ত সম্পূর্ণভাবে পরিপূর্ণ করেছেন আত্মকোরবানির মাধ্যমে৷ নাসরতের মসিহ সম্পূর্ণ পাপমুক্ত জীবন যাপন করেছেন, রয়েছেন পবিত্র ও বিনম্র৷ কেবলমাত্র তিনিই পেরেছেন গোটা বিশ্বের পাপের ভার বহন করতে, কারণ তার প্রেম হলো ঐশি অতুলনীয় খোদাই প্রেম৷ আসুন মসিহের আরাধনা করি, তাকে মহব্বত করি, এবং তাঁর পিতার মহিমা প্রচার করি, যিনি তাঁর প্রিয় পুত্রের পরিবর্তে নিজেই কোরবানি হতে প্রস্তুত ছিলেন, কিন্তু বিশ্বের অবিনশ্বরতার খাতিরে ও সলিববিদ্ধের বিচারের জন্য তার ক্ষেত্রে মৃতু্যবরণ করা সম্ভব ছিল না৷

তাঁর সাহাবি সুলভ প্রার্থনায় মসিহ খোদাকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন (ইউহোন্না ১৭), 'হে পূতপবিত্র পিতা৷' এ বাক্যংশে আমরা খোদার ধার্মিকতার বিষয়ে নিগূঢ় জ্ঞান বিদ্যামান দেখতে পাই৷ শ্রষ্টা মহব্বত ও সততায় পরিপূর্ণ৷ তার প্রেম অন্যায় সূচক নয়, তিনি তার করুণা ন্যায় বিচারের সাথে প্রয়োগ করেন৷ মসিহের মৃতু্যতে খোদার চরিত্রের সকল দাবি-দাওয়ার প্রাপ্তি ঘটেছে৷ চূড়ান্ত প্রেম, যা নীতিগতভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, যাকে আমরা 'অনুগ্রহ' বলে থাকি, আমাদের কাছে প্রদান করা হয়েছে ন্যায়পরায়নভাবে, যেমন খোদা সদাসর্বদা ধার্মিক যদিও তিনি আমাদের প্রেম ও ক্ষমা করে থাকেন৷

প্রার্থনা: হে পবিত্র ত্রিত্ত্বপাক, পিতা, পুত্র ও পাকরূহ, আমরা তোমার আরাধনা করি, আমাদের বোধের অতীত তোমার প্রেম কার্যকর, আর তোমার পবিত্রতার গভীরতা সাগর মহাসাগরের গভীরতা হার মানায়৷ সকল পাপের কবল থেকে তুমি আমাদের নাজাত দিয়েছো, মৃতু্যর কবল থেকে করেছো মুক্ত, আর অভিশপ্ত শয়তানের হাত থেকে রক্ষা করেছো, স্বর্ণ রৌপ্য দিয়ে করোনি মুক্ত, বরং মর্মবিদারক অভিশপ্ত সলিবে মসিহের জ্বালাময়ী মৃতু্যর মাধ্যমে মুক্ত করেছো৷ তাঁর বেগুনাহ রক্ত সকল পাপের অভিযোগ থেকে আমাদের পাকসাফ করেছে, আমরা খোদার রহমতে পূতপবিত্র ও ধার্মিক বলে হয়েছি গৃহীত৷ মসিহের আত্মকোরবানির সম্মান করি আমরা সকলে, আর আমাদের সমর্পণ করি তোমার হাতে৷ তোমাকে ধন্যবাদ দেই আমাদের অবমুক্ত ও নির্দোষ প্রতিপন্ন করার জন্য৷

প্রশ্ন:

২৮. এ বাক্যাংশের অর্থ কী হবে, 'খোদার ধার্মিকতা প্রদর্শনের জন্য'?

কারণ সবাই গুনাহ করেছে এবং আল্লাহর প্রশংসা পাবার অযোগ্য হয়ে পড়েছে৷
কিন্তু মসিহ ঈসা মানুষকে গুনাহের হাত থেকে মুক্ত করবার ব্যবস্থা
করেছেন এবং সেই মুক্তি মধ্য দিয়েই রহমতের দান হিসেবে
ঈমানদারদের ধার্মিক বলে গ্রহণ করা হয়৷

(রোমীয় ৩:২৩-২৪)

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on February 25, 2014, at 12:59 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)