Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 077 (Jesus enters Jerusalem)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Burmese -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Hausa? -- Hindi -- Indonesian -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish? -- Tamil -- Telugu -- Turkish -- Urdu -- Uyghur? -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
দ্খন্ড ৩ - সাহাবিদের প্রত্যেকের মধ্যে নূর জ্বলিতেছে (যোহন ১১:৫৫ - ১৭:২৬)
ক - পবিত্র সপ্তাহের ভূমিকা বা প্রস্তাবনা (যোহন ১১:৫৫ - ১২:৫০)

২. ঈসা মসিহের জেরুজালেমে প্রবেশ (যোহন ১২:৯-১৯)


যোহন ১২:৯-১১
৯. ঈসা মসিহ বেথানিয়াতে আছেন জানিতে পারিয়া ইহুদিদের মধ্য হইতে অনেক লোক সেখানে আসিল৷ তাহারা যে কেবল ঈসা মসিহের জন্য সেখানে আসিয়াছিল তাহা নয়, কিন্তু যাহাকে ঈসা মসিহ মৃতু্য হইতে জীবিত করিয়াছিলেন সেই লাসারকেও দেখিতে আসিল৷ ১০. তখন প্রধান ইমামেরা লাসারকেও মারিয়া ফেলিবেন বলিয়া ঠিক করিলেন, ১১. কারণ লাসারের জন্য ইহুদিদের মধ্যে অনেকেই ঈমামদের ছাড়িয়া ঈসা মসিহের ওপর ঈমান আনিয়াছিল৷

ঈসা মসিহ লাসারের সাথে সাক্ষাত্‍ ছিল৷ লোকেরা জেরুজালেম থেকে জৈতুন পাহাড় এবং বেথানিয়াতে জড় হয়েছিল জীবন ফিরিয়ে দেওয়ার মোজেজা প্রত্যক্ষ করতে৷

প্রধান ঈমামেরা সন্দুকীয়দের কাছে ঝুঁকে পড়েছিল এমনকি যদিও সন্দুকীরা পুনরুত্থান অথবা রুহের অস্তিত্বে বিশ্বাস করতো না৷ তবুও তারা ঈসা মসিহ এবং লাসারকে এই পরিমানে ঘৃণা করেছিল যে তারা কেবল মোজেজাকে প্রত্যাখ্যান করেনি কিন্তু হত্যা করে কবর দিতে চেয়েছিল, এটা প্রমাণ করতে যে মৃতু্যর পরে আর কোনো আশা নেই৷ একই সময় তারা ঈসা মসিহের ওপর সকল বিশ্বাসকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল, যেহেতু লোকেরা মনে করতো লাসারের পুনরুত্থান প্রমাণ করে যে ঈসা মসিহ ছিলেন খাঁটি নাজাতদাতা৷

যোহন ১২:১২-১৩
১২. যে সমস্ত লোক ঈদে গিয়েছিল তাহারা পরের দিন শুনিতে পাইল, ঈসা মসিহ জেরুজালেমে আসিতেছেন৷ ১৩. তখন তাহারা খেজুর পাতা লইয়া তাঁহাকে আগাইয়া আনিতে গেল আর চিত্‍কার করিয়া বলিতে লাগিল 'হোশান্না, যিনি প্রভুর নামে আসিতেছেন, তাঁহার গৌরব হোক! তিনিই ইসরায়েলের রাজা!'

ঈসা মসিহের নাম সবার মুখে মুখে ছিল এবং তারা অনুমান করছিল তিনি কি করতে পারেন, 'তিনি কি পালিয়ে যাবেন না শহর দখল করবেন'? এক রাত বেথানিয়াতে থাকার পর দর্শকেরা তাকে সকাল বেলায় তার সাহাবিদের সাথে জেরুজালেমের দিকে যেতে দেখলো, 'নুতন রাজা অগ্রসর হচ্ছেন এবং বেহেশতি রাজত্ব আসছে৷' অনেক লোক আরও মোজেজা এবং বিজয় দেখতে আসলো৷ কেউ কেউ খেজুর পাতা কাটলো এবং তাকে সম্ভাষণ জানানোর জন্য সেগুলিকে বয়ে নিয়ে আসলো৷ অন্যেরা গান গাইল যা দিয়ে রাজা এবং বীরদের প্রবেশের জন্য উদযাপন করা হয়৷ তারা আনন্দের সাথে চিত্‍কার করে বললো, 'আমরা আপনার প্রশংসা করি এবং আপনাকে বিবর্ধিত করি৷ আপনি সর্বশক্তিমান; আপনি প্রভুুুর নামে এসেছেন তার পূর্ণ কর্তৃত্ব নিয়ে৷ আমরা আপনাকে ধন্যবাদ দেই কারণ আপনি আশীর্বাদ নিয়ে এসেছেন৷ আমাদের সাহায্য করুন এবং সকল লজ্জা থেকে আমাদেরকে মুক্তি দিন৷ আপনি হলেন নাজাতদাতা বীর এবং নেতা৷ আপনি খাঁটি রাজা'৷

যোহন ১২:১৪-১৬
পাক-কিতাবের কথামতো ঈসা মসিহ একটা গাধা দেখিতে গাইয়া তাহার ওপর বসিয়াছিলেন৷ কিতাবে লেখা আছে ১৫. 'হে সিয়োন কন্যা, ভয় করিও না৷ দেখ, তোমার রাজা গাধার বাচ্চার ওপর চড়িয়া আসিতেছেন৷ ১৬. ঈসা মসিহের সাহাবিরা প্রথমে এই সমস্ত বুঝিতে পারিলেন না৷ পরে ঈসা মসিহের মহিমা যখন প্রকাশিত হইল, তখন তাহাদের মনে পড়িল, পাক-কিতাবের ওই কথা ঈসা মসিহের বিষয়েই লেখা হইয়াছিল৷ তাঁহাদের আরও মনে পড়িল, লোকেরা ঈসা মসিহের জন্যই ওই সমস্ত করিয়াছিল৷

ঈসা মসিহ এই প্রশংসা ধ্বনিতে কোনো সাড়া দেননি কারণ তিনি জানতেন লোকেরা যখন উত্তেজিত হয় তখন তারা স্পষ্টভাবে শুনতে বা চিন্তা করতে পারে না কিন্তু গলিতে এবং রাস্তায় ধাক্কা-ধাক্কি করে চিত্‍কার এবং হর্ষধ্বনি করতে থাকে৷ তাই ঈসা মসিহ তাদের দৃষ্টিগোচর করে বললেন যিনি একটা গাধার ওপর উঠেছিলেন, 'আমি সেই প্রতিশ্রুত রাজা যা সখরীয় (নবম অধ্যায়ের নবম আয়াতে) উল্লেখ আছে৷ ভয় করিও না কিন্তু আনন্দ কর৷ আমি শহরের দেয়াল ও দরজাগুলি ভাঙতে আসি নাই৷ আমি হত্যা করতে অথবা খোদার বিচার সম্পাদন করতে আসি নাই৷ আমি কেবল অনাথদের এবং বিধবাদের যত্ন নিতে এসেছি'৷

'দুঃখজনক হলে সত্য সকল মানুষ ন্যায়পরায়ন নয়৷ বেশির ভাগ লোকই ন্যায়বিচারহীন, সোজা পথ ছেড়ে বিপথগামী হয়েছে৷ ভয় পেয় না আমি তোমাদের ধ্বংস করব না, যার জন্য তোমরা যোগ্য, কিন্তু তোমাদের মধ্যে শয়তানকে পরাজিত করবো৷ আমার দেহে তোমাদের পাপ বহন করবো, একজন বিজিত তবুও একই সময় মনে হবে দূর্বল এবং পরাজিত জীবন্তবলি৷ এইভাবে খোদার ক্রোধ থেকে তোমাদের আমি নাজাত করবো; আধ্যাত্মিক যুদ্ধে তিনি জয়ী হয়ে বেরিয়ে আসবেন'৷

'তোমরা চাও একটি বীরবেশী রাজা যে তলোয়ার দ্বারা জয় করবে, কিন্তু কোনো প্রচণ্ডতা ছাড়াই আমি তোমাদের কাছে একটি নম্র মেষশাবক হিসেবে এসেছি৷ আমি আমার ইচ্ছাকে পিতার কাছে সমর্পণ করেছি৷ তোমরা একটি বিদ্রোহ ও একটি বিজয়ের আশা করেছিলে, কিন্তু আমি তোমাদের দিতে চাই পুনর্মিলন, মুক্তি এবং খোদার সাথে শান্তি৷ আমি যে পশুটির ওপর আরোহন করি তার দিকে তাকিয়ে দেখ৷ আমি কোনো ঘোড়া বা উটে চড়ি না কিন্তু একটি গাধায় চড়ি৷ কোনো ধন-সম্পদ অথবা সম্মান আমার কাছে থেকে আশা কর না কারণ আমি অনন্ত জীবন নিয়ে এসেছি এবং তোমাদের জন্য বেহেশতের দরজা খুলে দিতে এসেছি যাতে করে প্রায়শ্চিত্তকারীরা খোদার সাথে পুর্নিমলিত হতে পারে৷'

কিন্তু তার সাহাবিরাসহযোগী ও লোকজন ঈসা মসিহের এই রূপক কাহিনির উদ্দেশ্য অনুধাবন করতে ব্যর্থ হলো৷ তার বেহেশতে উঠে যাবার পর ঈসা মসিহের নম্রতা এবং তার ভিতর খোদার মহিমা উপলব্ধি করার জন্য পাকরূহ তাদের মনকে খুলে দিল৷ রাজনৈতিক এবং বস্তুগত দিক থেকে এটা মানুষের আখাঙ্ক্ষা থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন ছিল৷ কিন্তু তার আগমনে পাকরূহ ঈসা মসিহের অনুসারীদেরকে আনন্দ ও প্রফুলতার দিকে চালিত করেছিল যার আগে তারা ভবিষ্যত্‍ বাণীর অর্থ এবং তার পূর্ণতাকে উপলব্ধি করলো৷

যোহন ১২:১৭-১৯
১৭. লাসারকে কবর হইতে ডাকিয়া জীবিত করিয়া তুলিবার সময়ে যে সমস্ত লোক ঈসা মসিহের নিকট ছিল তাহারাই পরে লাসারের জীবিত হইয়া উঠিবার বিষয়ে সাক্ষ্য দিতেছিল৷ ১৮. আর সেই জন্যই লোকেরা ঈসা মসিহকে আগাইয়া আনিতে গিয়াছিল, কারণ তাহারা শুনিয়াছিল, ঈসা মসিহ সেই আশ্চর্য কাজটা করিয়াছেন৷ ১৯. ইহা দেখিয়া ফরিশিরা একজন অন্যজনকে বলিলেন, 'আমাদের কোনো লাভই হইতেছে না৷ দেখ, সারা দুনিয়া তাহার দলে চলিয়া গিয়াছে৷'

যারা বেথানিয়া থেকে ঈসা মসিহের সঙ্গী হয়েছিল তারা শোভাযাত্রার সাথে মিলিত হলো যেটা রাজধানী থেকে তাকে কিদ্রন উপত্যাকায় সাদর সম্ভাষণ জানাতে এসেছিল৷ তাদের একজন চিত্‍কার করে বললো, 'তোমরা সম্ভাষণ দিয়ে ভাল করেছ কারণ ঈসা মসিহ হলো নাজাতদাতা যে মৃতকে পুনুরত্থিত করে নিজেকে নাজাতদাতা হিসেবে প্রমাণ করেছে৷' লাসারের পুনরুত্থান ছিল লোকদের জন্য ঈসা মসিহকে অনুসরণ করবার মূল ভিত্তি যিনি, পাঁচ হাজার লোককে পাঁচটি রুটি দিয়ে খাইয়েছিলেন৷ অন্য লোকেরাও এখানে তার কাছে এসেছিল কারণ তিনি একজন মৃত ব্যক্তিকে পুনরুত্থিত করেছিলেন, মসিহের প্রতি তাদের ভালোবাসা কেবল পার্থিব বিষয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল, ন্যায়পরায়ণতা এবং অনুতাপের জন্য নয়৷

ফরিশিরা উত্‍ফুল্ল লোকদের পাশে দাঁড়ালো এবং লোকদের নেতরা ঈসা মসিহের প্রতি রাগান্বিত এবং ঈর্ষান্বিত হচ্ছিল এবং তার জন্য অপেক্ষা করছিল যে সে শহর আক্রমন করবে৷ তারা কেঁপে উঠেছিল এবং তাদের ব্যর্থতাকে স্বীকার করলো৷ গোপনে ঈসা মসিহকে তাদের হাতে তুলে দেওয়ার তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলো না৷ বিজয় শোভাযাত্রা নিয়ে তিনি শহরে ঢুকলেন৷

প্রার্থনা: প্রভুু ঈসা মসিহ, আমি আমার হৃদয় এবং মনকে তোমার কাছে খুলে দিই যাতে করে তোমার পাক-রূহ প্রবেশ করতে পারে এবং আমাকে পরিবর্তিত করো তোমার ভাব মুক্তির উপযোগী করতে৷ আমার পাপ সকল ক্ষমা কর কারণ আমার হৃদয়ে তোমার প্রবেশের জন্য আমি অযোগ্য৷ আমার পাপ সত্ত্বেও তুমি আমার কাছে এসেছ৷ তুমি আমাকে ভালোবাস এবং রক্ষা করো কারণ খোদার সাথে তুমি আমার পুনর্মিলন ঘটিয়েছ এবং তোমার শান্তির রাজ্যে আমাকে নিয়ে এসেছ৷ আমি সকলের সাথে আনন্দে চিত্‍কার করে বলি, 'হোশান্না' প্রভুুর নামে যিনি আসিতেছেন তিনি ধন্য'৷ তুমি আমার রাজা, আমি তোমার সম্পত্তি, আমিন৷

প্রশ্ন:

৮১. জেরুজালেমে ঈসা মসিহ প্রবেশ কী অর্থ বোঝায়?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on June 14, 2012, at 12:35 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)