Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 076 (Jesus anointed in Bethany)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Hausa? -- Hindi -- Indonesian -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish? -- Tamil -- Telugu -- Turkish -- Urdu -- Uyghur? -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
দ্খন্ড ৩ - সাহাবিদের প্রত্যেকের মধ্যে নূর জ্বলিতেছে (যোহন ১১:৫৫ - ১৭:২৬)
ক - পবিত্র সপ্তাহের ভূমিকা বা প্রস্তাবনা (যোহন ১১:৫৫ - ১২:৫০)

১. বেথানিয়াতে ঈসা মসিহের তৈল দ্বারা অভিসিক্ত করণ (যোহন ১১:৫৫ - ১২:৮)


যোহন ১১:৫৫-৫৭
৫৫. তখন ইহুদিদের ঈদুল ফেসাখ নিকটে আসিয়াছিল৷ ঈদের আগে নিজেদের পাক-পবিত্র করিবার জন্য অনেক লোক গ্রাম হইতে জেরুজালেমে গিয়াছিল৷ ৫৬. এই সমস্ত লোক ঈসা মসিহের খোঁজ করিতে লাগিল৷ তাহারা এবাদতখানায় দাঁড়াইয়া একজন অন্যজনকে জিজ্ঞাসা করিতে লাগিল, 'তিনি কি এই ঈদে একেবারেই আসিবেন না? তোমাদের কি মনে হয়'? ৫৭. প্রধান ঈমামেরা ও ফরিশিরা ঘোষণা দিয়াছিলেন যে, ঈসা মসিহ কোথায় আছে তাহা যদি কেহ জানে, তবে সে যেন খবরটা তাহাদের জানায়, যাহাতে তাহারা ঈসা মসিহকে ধরিতে পারেন৷

তৌরাতে বর্ণিত ঈদুল ফেসাখ ছিল প্রধান ভোজ যা পালন করা হতো বেহেশতি ক্রোধের থেকে ইহুদিদেরকে উদ্ধার করবার জন্য৷ তার ফলে তারা বেহেশতি মেষশাবকের সুরক্ষার মধ্যে বাস করতো যা তাদের জন্য প্রস্তুত করা হতো, তারা মৃতু্যর যোগ্য ছিল, কিন্তু বিশ্বাসই তাদের রক্ষা করতো৷

বছরে একবার ইহুদিরা জেরুজালেমে দর্শনে যেত খোদাকে ধন্যবাদ দেওয়ার জন্য তার ক্ষোভের থেকে নিজেদেরকে রক্ষা করার নিমিত্তে৷ সেখানে তারা দশ হাজার মেষশাবক জবাই দিত এবং ওই মাংস খেত৷ অনেকে আগেই নিজেদেরকে অনুতাপের মধ্য দিয়ে পরিষ্কৃত করবার এবং খোদার মেষশাবককে শনাক্ত করবার জন্য জেরুজালেমে যেত৷ যদি কেউ কোনো মৃতদেহ স্পর্শ করতো তাকে সাতদিন ধৌত কাজ পালন করতে হতো যাতে করে সে খোদার এবাদত খানায় প্রবেশের যোগ্য হতো (গণনা পুস্তক ১৯ : ১১)

এই সময় নাসরীয় ঈসা সম্পর্কে তীর্থযাত্রীরা খোঁজ খবর নিত, 'সে কি আসবে অথবা তারা তাকে দেখবে না?' শেষে তারা জানলো যে ধমর্ীয় পরিষদ গোপনভাবে তাকে মৃতু্যদণ্ডাদেশ দেবার সিদ্ধা নিয়েছে৷ তারা দেশের মধ্যে অনেককে ঈসা মসিহের ওপর গোয়েন্দাগিরি করতে ডেকেছিল এবং তাদেরকে বলেছিল কোথাও যদি তাকে দেখা যায় তবে তাকে যেন গ্রেফতার করা হয়৷ ঈসা মসিহের জন্য মৃতু্য অপেক্ষা করছিল৷

যোহন ১২:১-৩
১. ঈদুল ফেসাখের ছয়দিন আগে ঈসা মসিহ বেথানিয়াতে গেলেন৷ যাহাকে তিনি মৃতু্য হইতে জীবিত করিয়াছিলেন সেই লাসার বেথানিয়াতে বাস করিতেন৷ ২. সেখানে তাহারা ঈসা মসিহের জন্য ভোজের আয়োজন করিলেন৷ মার্থা পরিবেশন করিতেছিলেন৷ ৩. এমন সময় মরিয়ম আধ সের খুব দামি, খাঁটি আতর লইয়া আসিলেন এবং ঈসা মসিহের পায়ে তাহা ঢালিয়া দিয়া নিজের চুল দিয়া তাহার পা মুছাইয়া দিলেন৷ সেই আতরের সুগন্ধে সমস্ত ঘর ভরিয়া গেল৷ যাহারা ঈসা মসিহের সঙ্গে খাইতে বসিয়াছিলেন তাহাদের মধ্যে লাসারও ছিলেন৷

ঈসা মসিহ তার শত্রুদের চালাকির জন্য ভয় পায়নি কিন্তু পিতার ইচ্ছানুযায়ী জেরুজালেমের দিকে যেতে লাগলেন৷ তিনি একাকিত্ব চাননি কিন্তু ভোজের এক সপ্তাহ আগেই জেরুজালেমে ফিরে গেলেন৷ তিনি বেথানিয়ার মধ্য দিয়েই গিয়েছিলেন যা ছিল রাজধানী থেকে তিন কিলোমিটার দূরে৷ তিনি সেই বাড়িতে এসেছিলেন যেখানে তিনি মৃতু্যকে পরাজিত করে তার ক্ষমতা প্রদর্শন করেছিলেন এবং তার পিতাকে গৌরবান্বিত করেছিলেন৷ লাসার বেঁচে ছিল, খাবার খাচ্ছিল, পান করছিল এবং বাজারের মধ্যে দিয়ে হেঁটে চলছিল৷ লোকেরা তাকে দেখে বিস্ময় হতবাক হয়ে গিয়েছিল তবুও তারা মৃতু্যর ব্যাপারে আতঙ্কিত ছিল মনে করছিল কোনো অলীক মূর্তি তারা দেখছে৷

মরিয়ম, মার্থা এবং লাসার খোদার মহিমার অভিজ্ঞতা লাভ করেছিল এবং পরিষদের ভীতি প্রদর্শন সত্ত্বেও এই ঘটনার সাক্ষ্য দিয়েছিল৷ সে ঈসা মসিহ এবং তার সাহাবিদের সাদর সম্ভাষণ জানিয়েছিল এবং অতি আনন্দের সাথে তাদেরকে ভোজে খাইয়েছিল৷ লাসার ছিল ঈসা মসিহের একজন বন্ধু এবং সে একজনের পাশে বসেছিল যে তাকে মৃতু্য থেকে পুনর্জাত করেছিল৷ এই দৃশ্য কি আমাদেরকে বেহেশত সম্পর্কে কিছু বলে না? খোদা বেশি দূরে থাকবেন না কিন্তু আমরা তার সাথে তার মহিমার মধ্যে বসবো৷

মার্থা ছিল গৃহের একজন মার্জিত রুচিসম্পন্ন তত্ত্বাবধায়ক, সে তার ঘরের সঞ্চিত ভাণ্ডার খুললো এবং তার যা কিছু ছিল তা ঈসা মসিহকে অর্পন করলো এবং সে জানতো ঈসা মসিহ ছিলেন আসল নাজাতদাতা যিনি মৃতু্যকে জয় করেছিলেন৷

মরিয়ম ছিল বেশি রহস্যময়ী, ঈসা মসিহকে তার নিজের মতো সম্মান জানালো এবং এক বোতল খুব দামি আতর তাকে দিল যার মূল্য প্রায় এক বছরের কাজের মজুরির সমান৷ সে তার ভাণ্ডারের সব থেকে মূল্যবান জিনিষটি ঈসা মসিহকে দিতে চেয়েছিল৷ কিন্তু সে ঈসা মসিহের মাথায় আতর লেপন করতে অযোগ্য ছিল বলে মনে করেছিল, তার পরিবর্তে সে তার পায়ে তার জীবনের সঞ্চিত আতর লেপন করেছিল৷ ভালোবাসা নগণ্য জিনিস নয় কিন্তু মূল্যবান কিছু উত্‍সর্গ করা বিশাল ব্যাপার৷ এরপর সে তার নিজের চুল দিয়ে তার পা মুছাইয়া দিলো৷ ভালোবাসার এই নিদর্শন হলো আন্তরিক এবং পবিত্র, যা ঘরটিকে সৌরভে ভরিয়ে দিয়েছিল৷ যারা উপস্থিত ছিল তারা মরিয়মের এই আতরের গন্ধে সুরভিত হয়েছিল৷

যোহন ১২:৪-৬
৪. ঈসা মসিহের সাহাবিদের মধ্যে একজন যে তাহাকে শত্রুদের হাতে ধরাইয়া দিবে, সেই এহুদা ইস্কারিয়োত্‍ বলিল, 'এই আতর ৫. ৩০০ দিনারে বিক্রি করিয়া গরিব দুঃখীদের দেওয়া যাইত৷ কেন তাহা করা হইল না?' ৬. এহুদা যে গরিবদের বিষয়ে চিন্তা করিয়া এই কথা বলিয়াছিল তাহা নয়৷ আসলে সে ছিল চোর৷ টাকার বাক্স তাহার নিকটে থাকিত বলিয়া যাহা কিছু জমা রাখা হইত তাহা হইতে সে চুরি করিত৷

এহুদা ঈসা মসিহের থেকে টাকা বেশি ভালবাসতো, খাঁটি বিশ্বাস থেকে বস্তুকে বেশি পছন্দ করতো৷ তাই সে ব্যাখ্যা করতে চেয়েছিল টাকার বিনিময় মহত্ত্বের কিছুর জন্য মূল্যবান কিছু ত্যাগ করা, যা এর সাথে যুক্ত আধ্যাত্মিক আশীর্বাদকে ইচ্ছাকৃতভাবে প্রত্যাখান করে৷ সে মরিয়মের ভক্তির অর্থকে উপলব্ধি করতে ব্যর্থ হয়েছিল, যা ছিল ঈসা মসিহের কাছে ধন্যবাদ জ্ঞাপন এবং আত্মসমর্পণ৷ যে কেউ অর্থকে ভালোবাসে সে শয়তানে পরিণত হয়৷ এটা আশ্চর্যের বিষয় যে সে মেকি ধার্মিকতার মধ্যে ঈসা মসিহের ওপর তার ঘৃণাকে লুকিয়ে রেখেছিল৷ যেমনটি সে চেয়েছিল দাতব্য কাজের মধ্য দিয়ে গরিবদের সাহায্য করা৷ সে বাস্তবিক পক্ষে তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল ছিল না অথবা তাদেরকে কিছু দিতেও চায়নি৷ বরং সে নিজের জন্যে অর্থ সংগ্রহ করতে চেয়েছিল৷ দাতব্য কাজ তার জন্য ছিল চুরি করার একটি আচ্ছাদন, নিজের পকেটে বেশি টাকা রেখে সে গরিবদের সামান্য কিছু দিত : নগণ্য কিছুতেও সে বিশ্বস্থ ছিল না কিন্তু সে তার উদ্দেশ্য ও চিন্তায় একটি চোর ছিল৷

ঈসা মসিহ এই কোষাধ্যক্ষের হিসাব নিতেন না কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে সহ্য করে চলেছিলেন যদিও তিনি তার বিশ্বাসঘাতকতা এবং অপকর্মের কথা জানতেন৷ এহুদা একজন ডাকাত এবং প্রতারক ছিল যে নিজেকে ভালোবাসতো এবং অর্থ সম্পদে প্রলোভিত হতো এবং তার দাস ছিল৷ ভাই, আপনি খোদা এবং অর্থ এই দুটিকে একই সাথে সেবা করতে পারেন না৷ আপনি একটিকে ভালোবাসবেন অপরটিকে ঘৃণা করবেন৷ নিজেকে বোকা বানাবেন না৷ আপনার উদ্দেশ্য কী খোদা না একটি স্বাচ্ছন্দ্য জীবন৷

যোহন ১২:৭-৮
৭. ঈসা মসিহ বলিলেন, 'তোমরা উহার মনে কষ্ট দিও না৷ আমাকে দাফন করিবার সময়ে সাজাইবার জন্যই সে ইহা রাখিয়াছিল৷ ৮. গরিবেরা ত সব সময় পাইবে না৷'

খোদা আমাদেরকে অসংযত হতে বলেননি; সুগন্ধির পাত্র একে অপরের পায়ে ঢালতে বলেননি কিন্তু কেবলমাত্র আমাদের চারিদিকে দরিদ্র মানুষের প্রয়োজনীয়তাকে দেখার জন্য চোখ খুলতে বলেছেন৷ কোনো দল, ধর্ম অথবা আদর্শ ঈসা মসিহের এই কথাকে মুছে ফেলতে পারে না যে দরিদ্ররা সব সময়ই আমাদের সাথে থাকবে৷ আমাদের স্বার্থপরতা হলো স্পষ্ট, আমাদের ভালোবাসা হলো ক্ষীণ৷ পৃথিবীতে আধ্যাত্মিক সমাজতন্ত্র হতে পারে না; অথবা সবাই সবার মতো দানে, সম্পদে অথবা সম্মানে এক হতে পারে না৷ আমরা চরম দুর্দশাগ্রস্থদের, প্রত্যাক্ষিত ব্যক্তিদের এবং নি : সঙ্গদের খুঁজে বের করবো পূর্বে অথবা পশ্চিমে যেখানেই আমরা যাইনা কেন৷ প্রত্যেক শহর এবং গ্রামের মধ্যে দরিদ্রদেরকে খুঁজে বের কর এবং তাদের মধ্যে তুমি ঈসা মসিহের চেহারা দেখতে পাবে৷

ঈসা মসিহ জানতেন যে লোকেদের হৃদয় ছিল কঠিন পাথরের মতো শক্ত ও বরফের শত্রু শীতল৷ তিনি এসেছিলেন ভালোবাসার উষ্ণতা নিয়ে তাদের জন্য মৃতু্যবরণ করতে৷ তিনি আরও জানতেন যে পাকরূহ মরিয়মকে তার পা মুছিয়ে দিতে এবং তার কবরে আতর ঢালতে পরিচালিত করেছিল৷ যখন মানুষের মধ্যে বেহেশতি ভালোবাসা প্রবেশ করে তখন পাক-রূহ অপ্রত্যাশিত বিস্ময়ের কিছু লাভ করতে পথ নিদের্শনা দেয়৷ মরিয়মের উদ্দেশ্য ছিল বেহেশতি অতিথিকে মহিমান্বিত করা, তাই পাকরূহ মরিয়মকে সময়ের আগেই তাকে আতর দ্বারা অভিসিক্ত করতে পরিচালিত করেছিল৷ ঈসা মসিহ করুণাময় খোদার সাথে এই মন্দ পৃথিবীর পুনর্মিলন ঘটাতে শুরু করেছিলেন৷

প্রার্থনা: প্রভু ঈসা মসিহ, লাসারকে পুনরুত্থানের জন্য আমরা তোমাকে ভালোবাসি৷ তুমি অন্ধকার কবরকে ভয় পাওনি৷ আমাদের যা কিছু আছে তাই দিয়ে তোমাকে সেবা করবার জন্য আমাদের হৃদয়কে শিক্ষা দাও৷ নীচতা, ভণ্ডতা, চৌর্যবৃত্তি এবং ঘৃণা থেকে আমাদের মুক্ত কর৷ তোমার ভালোবাসায় আমাদেরকে পূর্ণ কর, এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মধ্যে উত্‍সর্গের পথে আমাদেরকে পরিচালিত কর৷

প্রশ্ন:

৮০. ঈসা মসিহ কেন মরিয়মের আতর দিয়ে অভিসিক্ত করাকে গ্রহণ করলো?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on June 14, 2012, at 12:26 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)