Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 124 (Jesus appears to the disciples with Thomas)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Burmese -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Hausa? -- Hindi -- Indonesian -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish? -- Tamil -- Telugu -- Turkish -- Urdu -- Uyghur? -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
চতুর্থ খন্ড - নূর অন্ধকারকে জয় করে (যোহন ১৮:১ - ২১:২৫)
বি - ঈসা মসিহের পুনরম্নত্থান ও উপস্থিতি (যোহন ২০:১ - ২১:২৫)

৩. সাহাবিদের মধ্যে যখন থোমা ছিলেন তখন মসিহ তাদের সাথে দেখা করেন৷ (যোহন ২০:২৪-২৯)


যোহন ২০:২৯
ঈসা মসিহ তাঁকে বললেন, 'থোমা, তুমি কি আমাকে দেখেছ বলে ইমান এনেছ? যারা না দেখে ইমান আনে তারা মোবারক৷'

আমরা জানি না, থোমা মসিহের ৰতস্থান ছুয়েছিলেন কিনা অথবা চোখে দেখেই তিনি তৃপ্ত হয়েছিলেন কি না৷ তিনি তার অবিশ্বাসের মাত্রা দেখে লজ্জা পেয়েছিলেন আর তার গর্ব হয়েছিলো ধুলিস্যাত৷ থোমার বিশ্বাস চাৰুস সাৰীর সাখ্য মতবাদ প্রতিষ্ঠার সাখ্য বলে মসিহ মনে করেন৷ কিন্তু প্রভু চাচ্ছেন তার ওপরে আরো উন্নত মানের প্রত্যয়দৃপ্ত বিশ্বাস স্থাপন করতে৷ সে বিশ্বাস হতে হবে তাকে না দেখেও স্থাপিত বিশ্বাস যা কোনো ভাবেই দুর্বল টলমান না হয়৷ যে স্বপ্নযোগে তাঁর দর্শন খোঁজে, অথবা দর্শন যোগে অথবা হঠাত্‍ তার সম্মুখে মসিহের হাজির হওয়ার মাধ্যমে স্থাপিত বিশ্বাস হলো প্রাথমিক সত্মরের বিশ্বাস৷ যা পরিপক্ক ইমানে রূপলাভ করতে পারে নি, পারে নি কাঙ্খিত সত্মরের ইমানে প্রতিষ্ঠিত হতে৷ কঠিন কঠিন মুহুর্তে মসিহ তাঁর সাহাবিদের সাথে বার বার দেখা দিয়ে তাদের বিশ্বাস ও মনোবল বাড়িয়ে দিয়েছেন৷

তাকে না দেখে যারা বিশ্বাস করে তারাই আশির্বাদপ্রাপ্ত, মসিহ তাদের শানত্মি দান করে থাকেন৷ প্রকৃত বিশ্বাস আমাদের হৃদয়ে ঐশি ৰমতা বা ইমানের শক্তি উত্‍পন্ন করে, আর স্বপ্ন ও দর্শন ৰণকালের মাত্র৷ খোদার কালামের ওপর মানুষের বিশ্বাস অদর্ৃশ্য ব্যক্তিকে সম্মানিত করে৷

মসিহের দর্শনদানের পর থেকে সাহাবি ও সুসমাচার প্রচারকগণ জীবনদায়ী বাণী প্রচার করতে শুরম্ন করেন৷ মসিহের পুনরম্নত্থান নবযুগের সুচনা বলে প্রচার করা হয়৷ কেননা ইমানদারদের হৃদয় মন তখন থেকে আলস্নাহপাকের নিয়ন্ত্রনে হচ্ছে নিয়ন্ত্রিত৷

আমাদের বিশ্বাস কেবল মতবাদই নয়, নয় তা কেবল চিনত্মা প্রসূত ধারণা, বরং এটা আমাদের জীবন ও পুনরম্নত্থিত মসিহের সাথে সম্পৃক্ত৷ কুদরতের বিষয় হলো, বর্তমানে লৰ লৰ ব্যক্তি না দেখেই মসিহকে মুক্তিদাতা হিসেবে বরণ করেছেন এবং তাদের জীবনে পাকরূহের ফল্গুধারা ও ফল হচ্ছে প্রবাহিত৷ তারা অননত্ম জীবনের উপস্থিতি অনুভব করছেন৷

অনেক মসিহি মসিহের পথে চলতে গিয়ে তাদের বাড়ি ঘর সহায়-সম্পদ ও স্বজন-প্রিয়জন হারিয়েছেন৷ মসিহের বাক্যের দ্বারা তাদের মধ্যে বিশ্বাস পেয়েছে দৃঢ় প্রতিষ্ঠা যা সার্বিক যুক্তি জালের উর্দ্ধে৷ মসিহ তেমন দৃঢ় বিশ্বাসীদের পুরস্কৃত করে থাকেন, এবং তাদের জীবনে তিনি তাঁর ঐশি জীবন প্রবাহিত করেন৷ আমাদের ইমান আমাদের গোটা সত্তার মধ্যে থাকে জড়িয়ে, যা নাজাতদাতা মসিহের সাথে যুক্ত রাখে৷

প্রার্থনা: প্রভু, তুমি হলে আমাদের ইমানের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিপক্কতা দানকারী মহানসত্ত্বা৷ তুমি আমাদের ভালোবেসেছো, আর তোমার কালামের মধ্য দিয়ে সত্য আমাদের কাছে পৌছে দিয়েছো৷ আমি বিশ্বাস করি ও দৃঢ় প্রত্যয় রাখি যে তুমি আমাকে সুরৰা করবে এবং শত শত ভাই বোনদেরও নাজাত দান করবে৷ তাদের দিবে বিশ্বাস ও অননত্মজীবনের নিশ্চয়তা৷

প্রশ্ন:

১২৮. যে বিশ্বাসিকুল না দেখে তাকে নাজাতদাতা হিসেবে বরণ করেন তাদেরকে কেন তিনি 'আশির্বাদপ্রাপ্ত' বলেছেন?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on July 30, 2013, at 11:12 AM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)