Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 044 (Jesus offers people the choice)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Burmese -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Georgian -- Hausa -- Hindi -- Igbo -- Indonesian -- Javanese -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Somali -- Spanish? -- Tamil -- Telugu -- Thai -- Turkish -- Urdu -- Uyghur? -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish -- Yoruba

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
দ্বিতীয় খণ্ড - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলিতেছে (যোহন ৫:১ - ১১:৫৪)
বি - ঈসা মসিহ হলেন জীবনের রুটি (যোহন ৬:১-৭১)

৪. ঈসা মসিহ মানুষদেরকে তাদের পছন্দের ব্যাপারে পেশ করলেন, 'গ্রহণ করো অথবা প্রত্যাখান কাের!' (যোহন ৬:২২-৫৯)


যোহন ৬:৪১-৪২
৪১. তখন ইহুদি নেতারা ঈসা মসিহের বিরুদ্ধে বিরক্তি প্রকাশ করিতে লাগলেন, কারণ ঈসা মসিহ বলিয়াছিলেন, 'বেহেশত হইতে যে রুটি নামিয়া আসিয়াছে, আমিই সেই রুটি'৷ ৪২. সেই নেতারা বলিতে লাগিলেন, 'এ কি ইউসুফের ছেলে ঈসা মসিহ নয়? ইহার পিতা মাতাকে ত আমরা চিনি৷ তবে এ কেমন করিয়া বলে, 'আমি বেহেশত হইতে নামিয়া আসিয়াছ'?

প্রচারক যোহন গালিলের ইহুদিদেরকে ডাকলেন, এমন কি যদিও তারা এই দলের লোক ছিল না, কিন্তু যখন তারা মসিহের রুহকে অস্বীকার করলো, তারা ইহুদিদের এবং দক্ষিণে বসবাসকারীদের থেকে খুব বেশি ভালো ছিল না৷ ইহুদি ধর্মগুরুরা ঈসা মসিহকে প্রত্যাখ্যান করবার আর একটি কারণ দেখালো, কারণ তাদের আইনগত চিন্তা এবং বিশ্বাস যা তাদের আত্মসংস্কারের বিষয় ছিল তার সাথে ঈসা মসিহের ভালোবাসার বৈশাদৃশ্য৷ কিন্তু গালিলের লোকেরা সামাজিক ঈসা মসিহের সামনে হোঁচট খেল, কারণ তারা তার পরিবারকে চিনতো, 'তার পিতা' (কাঠ মিস্ত্রি ইউসুফ তাদের সাথে বাস করতো যিনি একজন সাধারণ মানুষ ছিলেন, নবুয়তের বিষয় যার কোনো বিশেষ ক্ষমতোা বা কোনো দাম ছিল না এবং তার মা মরিয়ম অন্য সকল মহিলা থেকে আলাদা ছিলেন না কেবল মাত্র যে তিনি বিধবা হয়েছিলেন যাকে খোদার ক্রোধের নিদর্শন হিসেবে ধরা হয়েছিল৷ তাই গালিলীয়ের লোকেরা ঈসা মসিহকে বেহেশতের রুটি হিসেবে বিশ্বাস করেনি৷

যোহন ৬:৪৩-৪৬
৪৩. ঈসা মসিহ তাহাদের বলিলেন, 'আপনারা নিজেদের মধ্যে নানান কথা বলিবেন না৷ ৪৪. আমার পিতা, যিনি আমাকে পাঠাইয়াছেন, তিনি টানিয়া না আনিলে কেহই আমার নিকটে আসিতে পারে না৷ আর আমি তাহাকে শেষ দিনে জীবিত করিয়া তুলিব৷ ৪৫. নবীদের কিতাবে লেখা আছে 'তাহারা সকলে খোদার নিকট শিক্ষা পাইবে'৷ যে কেহ পিতার নিকট হইতে শুনিয়া শিক্ষা পাইয়াছে সেই আমার নিকটে আসে৷ ৪৬. পিতাকে কেহ দেখে নাই, কেবল যিনি খোদার নিকট হইতে আসিয়াছেন, তিনিই তাঁহাকে দেখিয়াছেন৷

যারা তাকে অস্বীকার করেছিল ঈসা মসিহ তার জন্মের ব্যাপারে অলৌকিক বিষয়টির কোনো ব্যাখ্যা দিতে চেষ্টা করেননি, কারণ তারা তা বিশ্বাস করতো না৷ অথবা আমরা নিজেদের থেকে মানুষ ঈসা মসিহের রুহানী সত্ত্বার ব্যাপারে জানতে সক্ষম হতো না পাক-রুহের দ্বারা জ্ঞানদান ব্যতীত৷ যে কেউ তার ওপর বিশ্বাস করে সে তাকে দেখবে এবং তার এই পরম সত্যটি জানবে৷

ঈসা মসিহ লোকদেরকে বেহেশতি প্রকাশিত কালামের বিরুদ্ধে বিড়বিড় করে কিছু বলতে নিষেধ করেছিলেন৷ অবাধ্য রুহ খোদার রাজ্যের বিষয়ে কিছুই শোনে না৷ কিন্তু যে কেউ তার প্রয়োজনকে অনুভব করে সে মনোযোগ দেয় এবং খোদার ভালোবাসার অভিজ্ঞতা লাভ করে৷

খোদা এই ভালোবাসার মধ্য দিয়ে লোকদেরকে নাজাতদাতা ঈসা মসিহের কাছে টানেন, তাদেরকে আলোকিত করবার জন্য আকাঙ্ক্ষা করেন এবং তাদেরকে ব্যক্তিগতভাবে শিক্ষা দেন, যেমনটি আমরা যিরমীয় ৩১ : ৩ এ পড়েছি৷ ইঞ্জিলের ওপরে মানুষের ইচ্ছা বা মন বিশ্বাস স্থাপন করতে পারে না; বরং পাক-রুহ যিনি আমাদেরকে আলোকিত করেন এবং আমাদের মধ্যে বেহেশতি জীবন সৃষ্টি করেন, আমাদেরকে উপলব্ধি করানোর জন্য যে, খোদা সত্য সত্যই আমাদের খোদা এবং পিতা৷ তিনি তার সন্তানদের তা শেখান এবং তাদের সাথে তার সম্পর্ক সংরক্ষিত করেন৷ রুহের আকর্ষনের মধ্য দিয়ে তিনি আমাদের হৃদয়ে বিশ্বাস স্থাপন করেন৷ আপনার চেতনার মধ্যে কি আপনি তা অনুভব করেছেন? খোদার ভালোবাসার প্রেরণার কাছে আপনি কি উম্মুক্ত?

পিতার রুহ আমাদেরকে ঈসা মসিহের দিকে পরিচালিত করে এবং তার দিকে আমাদেরকে পরিচালিত কর্ তে;ার জন্য আমাদের আকাঙ্ক্ষাকে তিনি জাগিয়ে তোলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত না আমরা ঈসা মসিহের কাছে যাই, তার সাথে সাক্ষাত্‍ করি, এবং তাকে ভালোবাসি৷ আমরা যেমন তিনি তেমনই আমাদেরকে গ্রহণ করেন এবং আমাদেরকে পরিত্যাগ করেন না এবং আমাদের মধ্যে অনন্ত জীন প্রতিষ্ঠিত করেন, যাতে করে আমরা ঢোকার জন্যে পিতার মহিমার মধ্যে পুনরুত্থানের শক্তির অংশীদার হই৷

যদিও পুনর্জন্মপ্রাপ্ত একজন বিশ্বাসী ও ঈসা মসিহের মধ্যে একটা পার্থক্য থেকেই যায়৷ পুত্র ব্যতীত কোনো মানুষই খোদাকে দেখেনি৷ প্রথম থেকেই তিনি পিতার সাথে ছিলেন এবং তাকে দেখেছেন৷ পিতা এবং পুত্র হলেন অবিচ্ছেদ্য৷ ঈসা মসিহ বেহেশতি শান্তি এবং সকল গুনাবলিতে অংশ নিয়েছেন৷

যোহন ৬:৪৭-৫০
৪৭. আমি আপনাদের সত্যই বলিতেছি, যে কেহ আমার ওপর ঈমান আনে, সে তখনই অনন্ত জীবন পায়৷ ৪৮.৪৯ 'আমিই জীবন রুটি৷ আমাদের পূর্বপুরুষেরা মরু এলাকায় মান্না খাইয়া ছিলেন, আর তবুও তারা মরিয়া গিয়াছেন৷ ৫০. কিন্তু ইহা সেই রুটি যাহা বেহেশত হইতে নামিয়া আসিয়াছে, যাহাতে মানুষ তাহা খাইয়া মৃতু্যর হাত হইতে রেহাই পায়৷

পিতার সাথে তার একাত্মতা ঘোষণার এবং তার শ্রোতাদের মধ্যে রুহের কাজ শুরু হবার পর ঈসা মসিহ তার ওপর বিশ্বাস করা তাদের জন্য একটি অপরিহার্য বৈশিষ্ট এই সত্যটিকে আবার তাদের কাছে উপস্থাপন করলেন৷ তিনি সংক্ষেপে খ্রিষ্টীয় নীতির ব্যাখ্যা দিলেন: যে কেহ ঈসা মসিহের ওপর বিশ্বাস করে সে চিরকাল বাঁচে৷ এই সত্য একটি প্রতীশ্রুতি যে মৃতু্য জীবনকে রোধ করতে পারে না৷

ঈসা মসিহ দুনিয়াতে খোদার কাছ থেকে একটি রুটির মতো৷ ঠিক যেমন তার হাত থেকে মোজেজার সময় রুটিগুলো শেষ হয়ে যায়নি যা দিয়ে পাঁচ হাজার লোককে খাওয়ানো হয়েছিল, তেমনিই সকল সময় ঈসা মসিহ দুনিয়ার প্রয়োজনকে পর্যাপ্ত পরিমাণে মেটায়, কারণ তার মধ্যে খোদার পূর্ণতা ছিল৷ তার কাছ থেকে আপনি আশা, আনন্দ এবং আশীর্বাদ পান৷ এক কথায় তিনি খোদার জীবনকে দুনিয়ার কাছে অর্পণ করেন অথচ দুনিয়া তাকে প্রত্যাখ্যান করেছিল৷

মরু-প্রান্তরে যে মান্না ওপর থেকে নিচে পড়েছিল তা ছিল খোদার দান; এটা ক্ষণস্থায়ী ছিল৷ যারা তা খেয়েছিল তারা সবাই মেরে গিয়েছিল৷ দাতব্য কার্যাদি, প্রযুক্তি বিজ্ঞানের উন্নতি এবং বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার যা আমরা দেখি তা স্বল্প সময় এবং আংশিকভাবে সাহায্য করে৷ সেই প্রেক্ষাপটে মৃতু্যর কোনো প্রতীকার নাই অথবা পাপের ওপর বিজয়লাভ করা যায় না৷ কিন্তু যে কেউ মসিহকে গ্রহণ করে সে মরবে না৷ এটাই ছিল মসিহের উদ্দেশ্য, আপনার কাছে আসা এবং আপনার সঙ্গে থাকা৷ তিনি ব্যক্তিগতভাবে আপনার মধ্যে বাস করতে চান, যাতে করে অন্য কোনো রুহ আপনার ওপর নিয়ন্ত্রণ করতে না পারে৷ তিনি সকল প্রকার মন্দ বাসনাকে দূরীভূত করতে পারেন, এবং আপনার ভয়কে প্রশমিতো করতে পারেন ও আপনার দুর্বলতাকে শক্তি দিতে পারেন৷ তিনি খোদার রুটি যা আপনার জন্য ধার্য করা হয়েছে৷ খান এবং বাঁচুন, যেন অন্য পাপীদের মতো বিনষ্ট না হন৷

প্রশ্ন:

৪৮. কেমন করে ঈসা মসিহ তার শ্রোতাদের বিড়বিড় করে কথা বলার উত্তর দিয়েছিলেন?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on June 13, 2012, at 10:02 AM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.140)