Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 035 (God works with His Son)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Burmese -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Hausa? -- Hindi -- Indonesian -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish? -- Tamil -- Telugu -- Turkish -- Urdu -- Uyghur? -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
দ্বিতীয় খণ্ড - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলিতেছে (যোহন ৫:১ - ১১:৫৪)
ক) জেরুজালেমে দ্বিতীয় যাত্রা (যোহন ৫:১-৪৭) -- ঈসা মসিহ এবং ইহুদিদের মধ্যে বিবাধের শুরু হলো

২. খোদা তার পুত্রের সাথে কাজ করেন (যোহন ৫:১৭-২০)


যোহন ৫:১৭-১৮
১৭. তখন তিনি সেই নেতাদের বলিলেন, 'আমার পিতা সব সময় কাজ করিতেছেন এবং আমিও করিতেছি৷' ১৮. ঈসা মসিহের এই কথার জন্য ইহুদি নেতারা তাঁহাকে মারিয়া ফেলিবার জন্য উঠিয়া পড়িয়া লাগিলেন, কারণ তিনি যে কেবল বিশ্রামবারের নিয়ম ভাঙিতেছিলেন তা-ই নয়, খোদাকে নিজের পিতা বলিয়া ডাকিয়া নিজেকে খোদার সমানও করিতে ছিলেন৷

বৈথেসদাতে সুস্থতাদানের আগে ঈসা মসিহের সাথে বিরোধিতা ছিল স্বল্প মাত্রায়৷ কিন্তু ওই ঘটনার পর শত্রুতা বৃদ্ধি পেল৷ তার শত্রুরা তাকে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিল৷ তাই মোজেজার বিষয়টি তার সাথে ইহুদিদের সম্পর্কের মধ্যে একটি সন্ধিক্ষণ ছিল৷ অতপর ঈসা মসিহ নির্যাতিত হলো এবং অপরাধীদের তালিকায় তার নামভুক্ত হলো৷ ঘটনাগুলির সন্ধিক্ষণের কারণ কী ছিল?

ঈসা মসিহের ভালোবাসা এবং আইনের কর্তৃত্ব, যা ছিল কঠোর, এই দুইয়ের মধ্যে একটি সংঘাত সৃষ্টি হলো৷ তৌরাতের লোকেরা কারাবন্দিদের মতো বাস করতো৷ অনেক বিচার ব্যবস্থার প্রচলন ছিল যাতে মানুষ পুরোপুরিভাবে আইন-কানুন মেনে চলার জন্য বাধ্যছিল; কারণ ভালো কার্য থেকে ন্যায়পরায়ণতার ফল পাওয়া যেত৷ ধার্মিক লোকেরা সতর্ক ছিল যাতে করে বেহেশতি হুকুমকে অমান্য করা না হয় এবং যাতে করে বেহেশতি অনুগ্রহ লাভ করা যায়৷ আইন মেনে চলা হয়ে গিয়েছিল আত্ম অহমিকা এবং প্রেমহীনতার মিথ্যা ওজর৷ যেহেতু তারা খোদার সাথে একটি চুক্তির মধ্য দিয়ে চলতো এবং যেটাকে মনে করা হতো আইন দ্বারা এক সংস্থা ভুক্ত৷ চরমপন্থিরা প্রত্যেককে বাধ্য করতো তাদের দেওয়া অসংখ্য আইন-কানুন মেনে চলতে৷ সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ছিল, বিশ্রামবারের দিন কাজের ওপর নিষেধাজ্ঞা৷ যেমনই খোদা সৃষ্টির দিন থেকে সপ্তম দিনে কাজ বন্ধ রেখেছিলেন, তাই মানুষদের জন্য এবাদত বাদে অন্য কোনকাজ করা ওই দিনে নিষিদ্ধ ছিল, এই আইন অমান্য করলে মৃতু্যদন্ড দেওয়া হতো৷

তাই বিশ্রামবার হয়ে গিয়েছিল ইহুদি এবং তাদের খোদার ইচ্ছার নির্দশন স্বরূপ, এবং তাদের ভিতর খোদার উপস্থিতি নির্দেশ করতো, কারণ খোদার বিরুদ্ধে কোন পাপ তারা করতো না যাতে এই ঐক্য নষ্ট হয়৷৷

ফরিশিদের কাছে ঈসা মসিহের স্বাভাবিক উত্তর ছিল, যারা বিশ্রামবারের আইন ভঙ্গের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিল, এটা চুড়ান্তভাবে বলা হলো 'খোদা কাজ করেন'৷ আমরা কাজ শব্দটা এবং তার প্রকৃতি প্রত্যয়গত শব্দটি পড়েছি, যেমন ফরিশিদের কাছে ঈসা মসিহের বক্তব্য ছিল সাতবার কাজ করা৷ তাদের নিজর্ীব আইন-কানুনের জবাবে খোদার ভালোবাসার কাজের কথা ঘোষনা করেছিলেন৷ এখনো পর্যন্ত খোদা কেমন করে তার সৃষ্টিশীল কাজ থেকে বিশ্রাম নিতে পারেন, কিন্তু এখন পর্যন্ত তিনি অব্যাহতভাবে কাজ করে যাচ্ছেন? যখন থেকে পাপ দুনিয়াতে ঢুকেছিল, এবং সকল সৃষ্টিকে মৃতু্য কলুষিত করেছিল, বিশ্বব্রহ্মাণ্ড তার উত্‍সমূল থেকে পৃথক হয়ে পড়েছিল, তখন খোদা, শক্তির সাথে বিপথগামীদেরকে রক্ষা করতে প্রচণ্ডভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, এবং বিদ্রোহীদেরকে তার সহভাগিতার মধ্যে ফিরিয়ে আনছেন৷ আমাদের পবিত্রতা হলো তাঁর উদ্দেশ্য, তাঁর আন্তরিক ভালোবাসা উপলব্ধি করার মধ্য দিয়ে৷

বিশ্রামবারে আরোগ্যদান হলো খোদার কাজের একটি অপরিহার্য বৈশিষ্ট্যের প্রতীকৃতি৷ ঈসা মসিহ রহমতের শিক্ষা দিয়েছিলেন এবং ভালোবাসার কাজগুলি সম্পন্ন করেছিলেন, এমনকি যখন তার কাজকে মনে হয়েছিল আইন বিরুদ্ধ৷ প্রেম হলো আইনের পরিপূর্ণতা৷ বিশ্রামবারে আরোগ্যদান ছিল একটা সামনাসামনি আক্রমণের মতো যা ছিল মিথ্যা ধার্মিকতা এবং ভালোবাসা বিবর্জিত একটি কাজ৷

তখন ইহুদিরা চিত্‍কার করে বললো, 'ঈসা মসিহ বিশ্রামবার ভেঙে ফেলছে! চুক্তিনামার স্তম্ভগুলো টুকরো টুকরো হয়ে পড়ছে আমাদের সাহায্য করুন৷ এই আইনের শত্রুটি খোদাকে নিন্দা করছে এবং নিজেকে নুতন আইনদাতা হিসেবে মনে করছে যা আমাদের জাতির জন্য বিপদজনক'৷ তাদের কেউ হতভাগা ব্যক্তিদের জন্য ঈসা মসীহ্রে ভালোবাসাকে লক্ষ্য করেনি অথবা তারা দুনিয়াতে তার বিজয় লাভকে দেখেনি৷ তারা তাদের ধর্মন্ধতার মধ্যে অন্ধের মতো পড়েছি৷ আশ্চর্য হবেন না? এইরকম ধর্মান্ধতার কারণে যদি আজও মানুষ ঈসা মসিহকে নাজাতদাতা হিসাবে উপলব্ধি করতে ব্যর্থ হতে দেখে৷

ইহুদিরা ঈসা মসিহের ওপর প্রচন্ড ক্রোধান্বিত হয়েছিল তার খোদা নিন্দার জন্য, তারা চিন্তা করেছিল এবং শুনেছিল যে খোদা তার পিতা৷ এটি তাদের কাছে নোংরা মনে হয়েছিল৷ সুতরাং তারা চিত্‍কার করে বলেছিল, 'খোদা এক, তার কোন পুত্র নাই'৷ কেমন করে ঈসা মসিহ খোদাকে পিতা বলে ডাকতে পারেন? এই বিষয়টি তাদের অজ্ঞতাকে প্রকাশ করে; তারা রুহের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে বসবাস করতো না অথবা তারা পবিত্র কিতাবের দিক্ষা নেয়নি৷ কারণ সেখানে খোদার পিতৃত্বের বিষয়ে অনেক লক্ষণীয় ভবিষত্‍ বাণী ছিল৷ খোদা চুক্তিনামার লোকদেরকে 'আমার পুত্র' বলে ডেকেছিলেন (যাত্রাপুস্তক ৪ : ২২, হোশেয় ১১ : ১)৷ যখন জাতি খোদাকে 'পিতা' বলে ডেকেছিল (দ্বিতীয় বিবরণ ৩২ : ৬; গীতসংহিতা ১০৩ : ১৩; যিশাইয় ৬৩ : ১৬; যিরমীয় ৩ : ৪, ১৯ এবং ৩১ : ৯)৷ খোদা তার ওপর বিশ্বাসী রাজাকে 'আমার পুত্র' বলে ডেকেছিল (২. শমুয়েল ৭ : ১৪)৷ কিন্তু চুক্তিপত্রে আবদ্ধ জাতির কোনো সাতন্ত্র ব্যক্তি খোদাকে 'পিতা' বলে ডাকার অধিকার পায়নি৷ এটা মেনে নেওয়া ইহুদিদের মনের দিক থেকে অসম্ভব ছিল এবং তারা উদ্ধতভাবে সীমা লঙ্ঘন করেছিল৷ ইহুদিরা ঈসা মসিহের আসবার প্রতিশ্রুতির কথা জানতো এবং তার উত্‍পত্তিস্থান হবে বেহেশত থেকে এবং অনন্ত জীবন দান করবেন৷ ঈসা মসিহের প্রতি তাদের ঘৃণা তাকে ত্রাণকর্তা হিসেবে অবিশ্বাস প্রদর্শন করে৷

ইহুদিদের ভীতিকর কথার জবাব ঈসা মসিহ তার ভাষায় এইভাবে স্পষ্ট করে বলেছিল, পিতা যা করেন সেও সেই একই কাজ করেন জ্ঞান এবং ভালোবাসার মধ্য দিয়ে৷ ঈসা মসিহ দৃঢ়তার সাথে বলেছিলেন তিনি সব কিছু করতে সমর্থ এবং যা খোদার সমকক্ষ ছিল৷ এই ধরনের চিন্তাধারণার বিপক্ষে ইহুদিদের প্রতিক্রিয়া ছিল অত্যন্ত কঠোর এবং বেপরোয়া৷ যে কেউ নিজেকে খোদার সমতোুল্য করে, তাকে সরিয়ে ফেলতে হবে৷ ইহুদিরা ঈসা মসিহকে খোদা-নিন্দুক হিসেবে ঘৃণা করতো যা, মৃতু্যদণ্ডের যোগ্য৷

যোহন ৫:১৯-২০
১৯. ইহাতে ঈসা সেই নেতাদের বলিলেন, 'আমি সত্যই আপনাদের বলিতেছি, পুত্র নিজ হইতে কিছুই করিতে পারেন না৷ পিতাকে যাহা করিতে দেখেন কেবল তাহাই করিতে পারেন, কারণ পিতা যাহা করেন পুত্রও তাহাই করেন৷ ২০ পিতা পুত্রকে মহব্বত করেন এবং তিনি নিজে যাহা কিছু করেন সমস্তই পুত্রকে দেখান৷ তিনি এইগুলির চেয়ে আরও মহত্‍ মহত্‍ কাজ পুত্রকে দেখাইবেন, যেন পুত্রকে সেই সমস্ত কাজ করিতে দেখিয়া আপনারা আশ্চর্য হন৷'

ঈসা মসিহ ইহুদিদের ঘৃণাকে ভালোবাসার মধ্য দিয়ে জবাব দিলেন এবং খোদার ভালোবাসার কার্যকে তাদের কাছে তুলে ধরার মধ্য দিয়ে তাদের ঘৃণাকে মোকাবেলা করলেন৷ হ্যা, পিতা যা করেন পুত্রও তাই করেন৷ ঈসা মসিহ কোন কাজ নিজের থেকে করেন না৷ খোদার সাথে তার একাত্মতা এতেঠই ঘনিষ্ঠ ছিল যে, একটা শিশু তার পিতাকে যেমন ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করে এবং দেখে সে কীভাবে কাজ করে সে নিজেও পিতার মতো তাই করে৷ এইভাবে তিনি নিজেকে নত করেছিলেন এবং তার পিতাকে গৌরব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন৷ তিনি পিতাকে সম্মান করেছিলেন৷ আমাদেরকে উপলব্ধি করতে হবে যে আমরা স্বেচ্ছাপ্রণোদিত সেবক, এবং পিতার নামকে পবিত্রকরণের জন্য ডাকা হয়েছে, যেমন ঈসা মসিহকে ডাকা হয়েছিল৷

আত্মত্যাগ এবং নম্রতার মধ্য দিয়ে ঈসা মসিহ তার পিতার কাজ করার কতর্ৃত্বকে অর্জন করেছিলেন৷ পিতার কার্যাবলি, তার নাম এবং তার গুণসমূহ তারই ছিল৷ তিনি হলেন সত্যময় খোদা এবং শাশ্বত, সক্ষম, প্রেমময় এবং গৌরবময়৷ খোদার সাথে তাঁর একাত্মতা হলো নিখুঁত৷ পিতা খোদা ঈসা মসিহকে তার আত্মত্যাগের জন্য ভালোবাসেন, তার কাছে কিছুই গোপন করেন না৷ তিনি তাঁর অধিকার, পরিকল্পনা এবং কার্যাবলি তাঁর পুত্রের সাথে সমভাবে ভাগ করে নেন৷ এই অভিব্যক্তিগুলির মধ্য দিয়ে আমরা ত্রিত্বের একাত্বতাকে স্পষ্ট করে সত্যার্পণ করতে পারি যে ভালোবাসার একাত্মতা ক্রিয়াশীল৷ যেহেতু পিতা, পুত্র এবং পাক-রুহ সব ব্যাপারেই সহযোগী, আমরা এ বিষয়ে প্রফুল্ল হতে পারি যে পবিত্র ত্রিত্ব সীমাহীনভাবে কাজ করে যা যুদ্ধ, ঘৃণা এবং অধার্মিকতাকে এই পৃথিবী থেকে অবসান ঘটায়৷ কী মহত্‍ এই ভালোবাসার একাত্বতার কাজ এবং আইনের ব্যর্থতা৷

প্রার্থনা: বেহেশতি পিতা, তোমার পুত্রকে আমাদের কাছে পাঠানোর জন্য তোমাকে ধন্যবাদ দেই৷ তাঁর কাজের মধ্য দিয়ে তুমি দেখিয়েছ আমাদের কী করতে হবে এবং তোমার পরিচয়৷ সকল বিধিসম্মত কাজের থেকে আমাদের মুক্ত করো এবং ভালোবাসার কাজকে আমাদের জন্য মনোনীত কর৷ আমরা যেন ধর্মান্ধতা থেকে অনুতপ্ত হতে পারি এবং তোমার কাছে তাদের জন্য প্রার্থনা জানাই যারা আধ্যাত্মিকভাবে অন্ধ, যাতে করে তারা তোমার ভালোবাসার মধ্যে মুক্তি দেখতে পারে এবং তোমার কাছে নম্রভাবে নিজেদেরকে সর্মপণ করতে পারে৷

প্রশ্ন:

৩৯. কীভাবে এবং কেন খোদা তার পুত্রের সাথে কাজ করেন?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on June 12, 2012, at 12:19 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)