Waters of Life

Biblical Studies in Multiple Languages

Search in "Bengali":
Home -- Bengali -- John - 119 (Jesus appears to the disciples)
This page in: -- Arabic -- Armenian -- BENGALI -- Burmese -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- Hausa? -- Hindi -- Indonesian -- Kiswahili -- Kyrgyz -- Malayalam -- Peul -- Portuguese -- Russian -- Serbian -- Spanish? -- Tamil -- Telugu -- Turkish -- Urdu -- Uyghur? -- Uzbek -- Vietnamese -- Yiddish

Previous Lesson -- Next Lesson

যোহন - নূর অন্ধকারের মধ্যে জ্বলছে
যোহন বর্ণীত মসিহের নাজাতের বারতার সুসমাচার ওপর অধ্যয়ন
চতুর্থ খন্ড - নূর অন্ধকারকে জয় করে (যোহন ১৮:১ - ২১:২৫)
বি - ঈসা মসিহের পুনরম্নত্থান ও উপস্থিতি (যোহন ২০:১ - ২১:২৫)

২. উপরের ঘরে সাহাবিদের সাথে মসিহের দর্শন দান৷ (যোহন ২০:১৯-২৩)


যোহন ২০:১৯
সেই একই দিনে, সপ্তার প্রথম দিনের সন্ধ্যাবেলায় সাহাবিরা ইহুদি নেতাদের ভয়ে ঘরের সমসত্ম দরজা বন্ধ করে এক জায়গায় মিলিত হয়েছিলেন৷ তখন ঈসা মসিহ এসে তাদের মাঝখানে দাঁড়িয়ে বললেন, 'আসসালামু আলাইকুম৷'

বিগত রবিবার যে ভীতিকর ঘটনা ঘটেছিল, সে বিষয়ে সাহাবিগণ দরজা জানালা বন্ধ করে পর্যালোচনা করছিলেন৷ পিতর ও ইউহোন্নার মাধ্যমে তারা জানতে পেরেছিলেন, ঈসা মসিহ কবরে নেই, কবর শূন্য পড়ে আছে৷ মসিহের পুনরম্নত্থানের বিষয়ে ফেরেশতা যে সাৰ্য দিয়েছিলেন মরিয়ম তা সমর্থন করেছিলেন৷ মগদলীনী মরিয়ম যে তাঁকে (মসিহকে) পুনরম্নত্থানের পরে দেখেছিলেন সে বিষয়ে সাৰ্য দিয়ে ফিরছিলেন৷ মসিহের পুনরম্নত্থানের খবরে বিশ্বসত্ম বিশ্বাসীগণ আশ্চর্য হলেন কেননা তাদের সাথে তখনও তিনি দেখা দেন নি৷ মসিহকে যখন আটক করা হয় তখন তারা ঘুম কাতর ছিলেন৷ পিতর তাঁকে অস্বীকার করলেন, তাছাড়া তাঁর জেরা করার সময় কেউই তাঁর পাশে দাঁড়ান নি৷ অথবা সলিবের পাশেও কেউ উপস্থিত ছিলেন না, কেবলমাত্র ইউহোন্না এবং মরিয়ম মরদেহে মসলা মাখানো জন্য অপেৰ করছিলেন৷ ইহুদিদের ভয়ে তারা শঙ্কিত ছিল৷ ভাবছিলেন, নিসত্মার পর্বের ভোজ শেষ হবার সাথে সাথে তাদের ওপর নির্যাতনের পালা শুরম্ন যাবে৷ সে ভয়ে ভীত হয়েই তারা দরজা জানাল বন্ধ করে অপেৰা করছিলেন এবং হতাশা নিয়ে ভিতরের কামরায় আলোচনা করছিলেন৷ তারা ভাবছিলেন, মহিলার খবরটা একটা ফালতু স্বপ্ন মাত্র৷ পরষ্পর বলাবলি করছিলেন, মসিহকে আমরা অনুসরণ করেছিলাম এই ভেবে, তিনি বিজয় লাভ করবেন, রাজ্য প্রতিষ্ঠা করবেন আর উক্ত রাজ্যের মন্ত্রী মিনিষ্টার হবো আমরা৷ অথচ আজ আমরা পরাভুত৷ তারা আমাদের ধ্বংস করার জন্য খুঁজে ফিরছে৷

তাদের চরম হতাশা আর অবিশ্বাসের তিক্ততাভরা পরিস্থিতিতে মসিহ তাদের মধ্যে এসে হঠাত্‍ করে হাজির হলেন৷ তাদের বিশ্বাস, প্রেম ও নিঃশ্বতার জন্য তিনি উপস্থিত হলেন না বরং অবিশ্বাস ও বিপন্ন ব্যক্তিদের প্রতি করম্নণা প্রকাশ করার জন্যই তিনি তাদের মধ্যে উপস্থিত হলেন৷

নিরবে তাদের মধ্যে মসিহের উপস্থিতি ছিল একটা কুদরতের প্রকাশ৷ মৃত ব্যক্তি জীবিত, প্রত্যাখ্যত বন্দি হলো অবমুক্ত৷ কঠিন পাথরের কবর অথবা লৌহ গরাদ তাকে বেধে রাখতে পারে নি তাঁর মনোনীতদের সাথে সাৰাত দানকল্পে৷ আর দশ জন মানুষের মতো তাদের মধ্যে হাজির হলেন দৈহিক অবয়ব নিয়ে, তাকে স্পর্শ করা যায়, তিনি শুনতে পান, বলতে পারেন, সাধারণের মতোই৷ একই সাথে তিনি রম্নহানি সত্ত্বা, দেয়াল-দরজা জানালার মধ্য দিয়েও পারেন আসা যাওয়া করতে৷ তার বর্তমান অসত্মিত্ব আমাদের নিশ্চয়তা প্রদান করে, আমরা বিশ্বাসে তাঁর মধ্যে অবস্থান করলে আমরাও তাঁরই মতো হয়ে উঠবো৷ মসিহের পুনরম্নত্থান হলো আমাদের প্রত্যাশা৷

কি বিশাল প্রত্যাশা! মৃতু্যকে জয় করে যিনি হয়ে উঠেছেন পুনরম্নত্থিত, তিনি তাঁর সাহাবিদের কোনো ভর্তসনা না করে সাদর সম্ভাষণ জানালেন, শানত্মির সম্বোধন, 'তোমাদের উপর শানত্মি হোক' আর সময়টা ছিল পুনরম্নত্থানের পর্ব৷

এ অভিবাদন অর্থ বহন করে যে সলিব গোটা বিশ্বটাকে খোদার সাথে যুক্ত করে দিয়েছে৷ বেহেশত থেকে শানত্মি বইতে শুরম্ন করেছে পৃথিবীর ওপর এবং একটি নতুন জামানা শুরম্ন হয়ে গেছে৷ আর তা সম্ভব হচ্ছে আপনার উপর৷ পুনরম্নত্থিত মসিহকে গ্রহণ বা প্রত্যাখ্যানের ওপর৷ নাজাত গ্রহণ করবে না প্রত্যাখ্যান করবে তা মানুষকে সিদ্ধানত্ম নিতে হবে৷ যে কেউ পাপের জন্য তওবা করে এবং মসিহের ওপর বিশ্বাস করে, সেই আশির্বাদ প্রাপ্ত হয়৷ শানত্মিরাজের রাজ্যে যে কেউ যোগদান করেন তাকেই ন্যায়বান বলে ধরা হয়৷ যেমন হযরত পৌল বলেছেন, 'ইমানের দ্বারা আমরা ন্যায়বান বলে গৃহীত হয়েছি, মসিহের মাধ্যমে খোদার সাথে আমাদের শানত্মি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে৷

প্রার্থনা: প্রভু ঈসা মসিহ, মৃতু্যঞ্জয়ী, শানত্মিরাজ, আনন্দ ও ধন্যবাদসহ তোমাকে বরণ করি৷ কেননা দ-াজ্ঞা নিয়ে তুমি আমাদের কাছে হাজির হওনি, কিন্তু রহমত দানের জন্য তুমি এসেছো, এসেছে অবশ্বিাস ও হতাশার কবল থেকে মুক্তি করার জন্য, এসেছো তোমার শানত্মি আমাদের দান করার জন্য এবং আমাদের প্রতিষ্ঠা করার জন্য বেহেশতি পিতার সাথে৷ তোমার প্রদত্ত নাজাত আমাদের কোনো মজুরী নয়, কাজের মুল্য হিসেবেও প্রাপ্য নয়, বরং তা রহমতের দান৷ শিৰা দাও আমাদের বন্ধুবান্ধব ও অরিন্দমদের যেন তোমার রহমতের পরিকল্পনা সবিশেষ তারা বুঝতে পারে, যেন তারা তোমাকে গ্রহণ করে, যেন পাকরূহের বিরম্নদ্ধে পদৰেপ না নেয়৷

প্রশ্ন:

১২৩: পুনরম্নত্থানের পরে সাহাবিদের সাথে সাখ্যাত দেবার সময় প্রথম তিনি কি বলেছিলেন?

www.Waters-of-Life.net

Page last modified on July 30, 2013, at 11:08 AM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)